kalerkantho


মহাভারতে এক হচ্ছেন আমির খান-মুকেশ আম্বানি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ মার্চ, ২০১৮ ১৮:১০



মহাভারতে এক হচ্ছেন আমির খান-মুকেশ আম্বানি!

সময়টা এখন ম্যাগনাম ওপাসের। বলিউডে একের পর এক তৈরি হচ্ছে দুঁদে পরিচালকদের সব দুর্দান্ত ছবি। মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ছে প্রেক্ষাগৃহে। আলোচনা, সমালোচনা, বিতর্ক সমানে চলছে। বলিউডের রথী-মহারথী পরিচালকরা তৈরি করছেন এবং তৈরি করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিগ বাজেট সব ম্যাগনাম ওপাসের। বাজেট করা হচ্ছে ১ শ, ২ শ থেকে হাজার কোটি। এই ছবিগুলো তৈরি করতে আসছেন সুপ্রিম সব প্রযোজক-লগ্নিকারী। আর এ ধারায় নবতর সংযোজন পৃথিবীর অন্যতম শীর্ষ ধনী এবং ভারতের সেলিব্রিটি বিজনেসম্যান মুকেশ আম্বানি। শোনা যাচ্ছে, তিনি হতে যাচ্ছেন হাজার কোটি রুপি ব্যয়ে নির্মিতব্য সুপার ম্যাগসাম ওপাস 'মহাভারত'-এর অন্যতম অর্থ লগ্নিকারী। আর এই ছবিটির সাথে জড়িয়ে আছে আরেকটি মহা-নাম, মি. পারফেকশনিস্ট আমির খান।

'মহাভারত' নামে যে সুপার ড্রামাটি তৈরি করতে যাচ্ছেন এর প্রযোজক ও পরিচালকমহল তা থেকে জানা যায়, এই ছবিটির তিন থেকে পাঁচটি পর্ব করার কথা ভাবা হচ্ছে। এ ছাড়া এ-ও জানা গেছে, ছবিটিতে বেশ কয়েকজন পরিচালক থাকবেন এবং আমির খান নিজেও এর এক বা দুটি পর্বে মূল চরিত্রে অভিনয় করবেন। যদিও নিশ্চিত নয়, তবুও এমন গুজব শোনা যাচ্ছে, 'লর্ড অব দ্য রিংস' বা 'গেম অব থ্রোনস'-এর মতো বহুপর্বের হতে পারে 'মহাভারত'।

গণমাধ্যম মিড ডে এমন তথ্যই জানাচ্ছে।

এর আগে কোনো এক সাক্ষাৎকারে আমির খান বলেছিলেন, মহাকাব্য মহাভারত নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা তাঁর অনেক দিনের। প্রয়োজনে এই বড় মাপের কাজের পেছনে তিনি ১০ থেকে ১৫ বছর সময় ব্যয় করতেও রাজি। আর এই বিষয়টি আরো পাকাপোক্ত হয় যখন জানা যায় আমির মহাকাশচারী রাকেশ শর্মার বায়োপিক থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন।

তাহলে কী করবেন আমির, নিজের ড্রিম প্রজেক্ট নিয়ে কাজ শুরু করবেন কী?

এদিকে মুকেশ আম্বানি ইতিমধ্যেই ভায়াকম ১৮-এর মালিকানা নিজের হাতে নিয়েছেন। একতা কাপুরের বালাজি এবং এরোস-এর মতো প্রডাকশন হাউজের প্রজেক্টে লগ্নি করাও শুরু করেছেন তিনি। এ ছাড়াও আরো অনেক পরিকল্পনা আছে তাঁর। তবে, তিনি পুরোপুরি আমির খানের এই প্রজেক্টে নিজেকে সম্পৃক্ত করবেন কি-না তা নিয়ে এখনো ধোঁয়াশা রয়েছে। 

তবে অনেকেই বলছেন, মুকেশ আম্বানি যেমন ভারতীয় টেলিকমে রীতিমতো বিপ্লব ঘটিয়েছেন, ইচ্ছে করলে তিনি কী পারবেন না বলিউডেও একরকম বিপ্লব ঘটাতে!
সূত্র : ডেকন ক্রনিকল  



মন্তব্য