kalerkantho


পাকিস্তানে জন্ম বলেই রাহাত ফতেহ আলির গানে আপত্তি বাবুলের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২০:১৭



পাকিস্তানে জন্ম বলেই রাহাত ফতেহ আলির গানে আপত্তি বাবুলের

'ওয়েলকাম টু নিউইয়র্ক' ছবির 'ইস্তেহার' গানটি থেকে পাকিস্তানি গায়ক রাহাত ফতেহ আলি খানের গলা মুছে ফেলার দাবি জানালেন গায়ক-মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। রাহাতের পাশাপাশি আর এক পাকিস্তানি শিল্পী আতিফ আসলামের ভারতে গান গাওয়ার ব্যাপারেও তীব্র আপত্তি রয়েছে বাবুলের।

করণ জোহর, দিলজিত্‍‌ দোসাঞ্জ, সোনাক্ষী সিনহা, বোমান ইরানি, রাণা দুগ্গাবতী অভিনীত ফিল্ম ওয়েলকাম টু নিউইয়র্কে একটি বিশেষ গানে থাকবেন সলমন খানও। ছবির 'ইস্তেহার' গানটি নিয়ে আপত্তি বাবুল সুপ্রিয়র। তিনি ক্ষোভের সুরে বলেছেন, 'আমি ছবি নির্মাতাদের কাছে অনুরোধ করব যাতে রাহাতের কণ্ঠ সরিয়ে সেখানে অন্য কারও কণ্ঠ আনা হয়। আমি এটাও বুঝি না কেন দিল গিয়া গলান গানটি আতিফ আসলাম গাইবে। যেখানে এই একই কাজ অনেক ভালো করতে পারবেন আমাদের অরিজিত্‍‌। এফএম স্টেশনে যখন গর্বের সঙ্গে এই গান বাজবে, তখনই খবরের চ্যানেলগুলিতে পাক মদতপুষ্ট সন্ত্রাসে আমাদের জওয়ানদের শহিদ হওয়ার খবর দেখাবে।'

আতিফ বা রাহাতকে ছাড়া ভারতের কোনও সমস্যা হবে না বলে দাবি করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, 'দিল দিয়া গলানে দারুণ গেয়েছেন আতিফ। রাহাতও খুব ভালো গায়ক। তবে আতিফ বা রাহাতের মতো শিল্পীদের নিয়ে আমাদের কোনও সমস্যা নেই। সমস্যা ওঁদের জাতীয়তা নিয়ে। এটা কোনও রাজনৈতিক অবস্থান নয়। তবে যে পরিবারগুলি ছেলে, ভাই বা স্বামীকে হারিয়েছে যেকোনও অবস্থায় তাঁদের আবেগের পাশে দাঁড়াতে হবে।'

বলিউডের জাতীয় দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বাবুলের যুক্তি, 'ভারতীয়ত্বের অবিচ্ছেদ্য অংশ বলিউড। সারা বিশ্বে এটি ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করে। ভারতীয় ফিল্মে পাকিস্তানি শিল্পীদের নিষিদ্ধ করলে বিশ্বজুড়ে পাক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তোলা যাবে। আমার মনে আছে, ফাওয়াদ খানকে নিয়ে যখন অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভের ঝড় উঠেছিল, তখন এই প্রতিশ্রুতিই দেওয়া হয়েছিল। সীমান্ত-পারের সন্ত্রাস নিয়েই বা কেন নীরব পাক বিনোদন জগত্‍‌। তাঁদের একটাই অপরাধ, তাঁরা পাকিস্তানি। সে জন্যই তাঁদের ব্যান করা উচিত।'
সূত্র-এইসময়



মন্তব্য