kalerkantho


বাবারাও বাচ্চার দেখভাল করতে পারে : রানি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ২০:২৩



বাবারাও বাচ্চার দেখভাল করতে পারে : রানি

কতই বা বয়স আদিরার? সবে ১ পেরিয়ে ২-এ পা রেখেছে। কথা বলা দূরের কথা, এখনো জ্ঞানই হয়নি যার তাকে নিয়ে রানি’র হঠাত এত দুশ্চিন্তা কেন? আসলে, যত বড় নায়িকাই হন না কেন রানি তো এখন একজন মা। তাই মায়ের ভাবনা থেকেই মেয়ের জন্যে এই চিন্তা প্রকাশ করে ফেলেছেন।

আদিরার জন্মের এক বছর পরেরই বলিউড অভিনেত্রী রানি মুখার্জি আবার ফিরে এসেছেন লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন-এর জগতে। অনেকটা সময় তাই বাড়িতে আয়ার কাছে মাকে ছাড়া থাকতে হচ্ছে মেয়েকে। এই নিয়েই রানির মনে যত চিন্তা। ‘হিচকি’র প্রচারে এসে নানা কথার ফাঁকে তাঁর এই দুশ্চিন্তার কথাও জানাতে ভোলেননি, ‘গত একটা বছর আদির আমাকে সব সময় কাছে পেয়েছে। আচমকাই ও আমার কোলছাড়া। এটা ওর কাছে একদম পরিবেশ যেখানে ও মাকে পাচ্ছে না। জানি, ওর মানিয়ে নিতে বেশ কিছুদিন সময় লাগবে। কিন্তু ও সময়ের সঙ্গে সবটা মানিয়ে নেবেই। আর বড় হয়ে যখন জানতে পারবে কী কাজে ওকে না নিয়ে মা-বাবা বাইরে যেত গর্বে ওর মন ভরে যাবে।’

এখানেই থেমে থাকেননি রানি, ‘আসলে আমরা এখনো পুরনো সংস্কৃতিতে অভ্যস্ত। তাই পুরুষের পাশাপাশি মেয়েরা কাজে বাইরে বেরোলে আমরা ভুরু কোচকাই। এই ধ্যান-ধারণা মায়ের ক্ষেত্রে আরো বেশি। সেই ভাবনার বশবর্তী হয়েই আমার এই অস্বস্তি। সমাজ থেকে মা-বাবা, নারী-পুরুষের ভেদাভেদ যতদিন না যাবে ততদিন আমার মতো আরো অনেক মা সন্তানের জন্য দুশ্চিন্তা করবেন। আমাদের বুঝতে হবে, বাবারাও বাচ্চার দেখভাল করতে পারে। যেমন বাইরের কাজ সেরে সন্তানের যত্ন নিতে পারেন একজন মা।’

রানির এই ভাবনা ১০০ শতাংশ সত্যি। কিন্তু আদিত্য চোপড়াও কি এমনটাই ভাবেন? উত্তরে রানি’র বাণী, ‘আদির জন্যেই তো আমার এই কামব্যাক। আদি বুঝেছে, বাবার বাড়ি, শ্বশুরবাড়ির পরেও আমার একটা বাড়ি আছে। সেটা স্টুডিও। ওকে অস্বীকার করলে আমার কোনো অস্তিত্ব নেই।’    



মন্তব্য