kalerkantho


প্রশংসিত আমাদের গল্পটা...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ নভেম্বর, ২০১৭ ২০:৪৫



প্রশংসিত আমাদের গল্পটা...

টেলিভিশনের ওপর পুরোপুরি আস্থা রাখছে ক'জনা। দেখছে তবে টেলিভিশনের বিকল্পও পথ বানিয়ে ফেলেছে শহুরে ব্যস্ত মানুষেরা।

টিভিতে প্রোগ্রাম মিস? সমস্যা নেই। এখন সোশ্যাল মিডিয়া রয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় সবচেয়ে দেশের টেলিভিশন প্রোগ্রামগুলোর মধ্যে নাটকই বেশী দেখছে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা নাটকগুলোর মধ্যে  ‘আমাদের গল্পটা এমনও হতে পারতো’ আলোচনায় এসেছে।

খুবই সাধারণ একটি বিষয় অসাধারণভাবে উঠে এসেছে মাবরুর রশীদ বান্নার নির্মাণে। একটি চাকরি পেতে কি পরিমাণ ধকল সহ্য করতে হয়, কি পরিমাণ সংগ্রাম করতে হয় তা আমরা অনেকেই জানলেও বিষয়টি স্বচ্ছভাবে তুলে ধরেছেন বান্না-এমনটাই মন্তব্য যারা নাটকটি ইতোমধ্যে দেখেছেন তাঁদের। আর একটা চাকরির পেছনে অন্তর্নিহিত বিষয়গুলো কী? সুন্দরভাবে বেঁচে থাকা? সেই সুন্দর বেঁচে থাকা হয়ে ওঠে না যখন চাকরি থেকে যায় অধরা।

বেকার যুবক জাহিদ ঢাকায় গিয়ে চাকরির চেষ্টা করেন। কিন্তু চাকরি এতোই সহজ? না, পাওয়া হয় না চাকরি।

বেঁচে থাকার তাগিদে রাত জেগে দেয়ালে দেয়ালে পোস্টার সাঁটান। কিন্তু চাকরি তো দরকার। সেই চাকরির চিঠি পেয়েছিলেন জাহিদ, ততক্ষণে সব শেষ। যে চাকরির টাকা দিয়ে মায়ের চিকিৎসা করাতে চেয়েছিলেন সেই মায়ের মৃত্যুর পর চাকরির চিঠি হাতে আসে। অর্থাভাবে মারা যান জাহিদের মা।

তারিন আফসানা নামের এক তরুণী লিখেছেন, 'মুনিরা মিঠু আন্টির অভিনয় দুর্দান্ত ছিল। উনাকে দেখেই বারবার চোখে পানি চলে আসছে। সত্যিই বান্নাহ ভাইয়ের পরিচালনা মানেই দুর্দান্ত কিছু। '

নাজমুল হোসেন নামের একজন লিখেছেন, 'লাইফে দুইটা নাটক বেস্ট দেখলাম। একটা বড় ছেলে, আর একটা হলো এইটা। ধন্যবাদ। '

মইনুদ্দি মাহিন নামের একজন প্রবাসী লিখেছেন,  'নাটক দেখার প্রতি মুহূর্তে আমার চোঁখের জল ধরে রাখতে পারিনি কারণ আমিও তার অংশীদার আমি একজন সৌদি প্রবাসী দেশে অনেক চাকরি খুঁজেছি কিন্তু পাইনি তারপর অনেক কষ্ট করে অনেকের কাছ থেকে ধার কর্জ করে এবং ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে এসেছি। আমি জানি কষ্ট কারে কয়। '

আবেগীয় গল্পধারার এই নাটকে জাহিদের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইরফান। তাঁর মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন মনিরা মিঠু, প্রেমিকার চরিত্রে সাফা কবির। বন্ধুর ভূমিকায় অনন্য অভিনয় ছিল ইভান সাইর। ইরফানের বাবার চরিত্রে ছিলেন গোলাম রব্বানী মিন্টু।


মন্তব্য