kalerkantho


আবার ফিরছে ফিতা ক্যাসেটের যুগ, কিভাবে জানুন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ নভেম্বর, ২০১৭ ১২:৫৯



আবার ফিরছে ফিতা ক্যাসেটের যুগ, কিভাবে জানুন

একটি দৃশ্যে চঞ্চল, টেপ রেকর্ডার ও প্রিয়া আমানবাজার থেকে ১২ ভোল্টের ব্যাটারি ভাড়া এনে বাড়িতে টেপ রেকর্ডার বাজায় হারু। বড় ভাই নূরু সৌদি আরব থেকে কথা রেকর্ড করে ক্যাসেট পাঠিয়েছে।

উঠানজুড়ে মা, খালা, বউ, ঝিদের আসর বসেছে। সবার কান টেপ রেকর্ডারের দিকে। ক্যাসেটের ফিতা ঘুরে। পিনপতন নীরবতায় সবাই শুনতে থাকে নূর আলমের কথা। ঘুরতে থাকে নূর আলমের ক্যাসেটের চাকা!

এই একটি চিত্রকল্পের মাধ্যমে ভেসে ওঠে ৯০ দশকের চিরায়ত গ্রাম বাংলার বড় অংশ। আর সেই গল্পটিকেই এবার পর্দায় তুলে আনছেন নাট্যকার-নির্মাতা হিমু আকরাম। এমন অসাধারণ প্লট নিয়ে একটি দীর্ঘ ধারাবাহিক হতেই পারতো, তবে আপাতত হলো টেলিছবি। নাম নূর আলমের ক্যাসেট। ঢাকার অদূরে পুবাইলের বিভিন্ন স্থানে এর শুটিং শেষ হয়েছে সম্প্রতি।

যাতে নূর আলমের ছোট ভাই হারু চরিত্রে অভিনয় করেছেন যথার্থ অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। বিভিন্ন চরিত্রে আরও আছেন প্রিয়া আমান, শাহনাজ খুশি, দিলারা জামান, এস কে বাপ্পি, শরিফ ভুঁইয়া প্রমুখ।

গল্পটি প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, এখানে আমি হারু চরিত্রে অভিনয় করেছি। নূর আলমের ছোট ভাই। গ্রামের হাট থেকে ব্যাটারি ভাড়া করে আনা, বড় ভাবির ক্যাসেট চুরি করা, বউ এর সঙ্গে ঝগড়া করা, বিদেশ থেকে পাঠানো ভাইয়ের রেকর্ডিং ক্যাসেট বাজানোর আয়োজন করা- সব মিলিয়ে চরিত্রটি বেশ মজার। আগে গ্রামের বাস্তবতাও ছিল এমনই। এই টেলিছবির মাধ্যমে দর্শকরা অন্য একটি গল্প পাবেন। যে গল্পটির মধ্য দিয়ে অসংখ্য মানুষ বড় হয়েছেন, তবে এভাবে ভাবেননি কখনও।

যে গল্পটির হাত ধরে দর্শকরা ফিরে যাবেন ফেলে আসা নব্বই দশকে, গ্রামে কিংবা শৈশব-কৈশোরে। এদিকে নির্মাতা-নাট্যকার হিমু আকরাম বলেন, এক কথায় আমাদের ফেলে আসা জীবনের গল্প এটি। আমি শুধু চেষ্টা করেছি এই তথ্য-প্রযুক্তির যুগে দর্শকদের খানিক সময়ের জন্য অতীতে ফিরিয়ে নিতে। নির্মাতা জানান, নূর আলমের ক্যাসেট প্রচার হবে ২৪ নভেম্বর বেলা ৩টায় চ্যানেল আই এ।

 


মন্তব্য