kalerkantho


'আনফিট' চরিত্রে ডাকোটা জনসন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ২০:১২



'আনফিট' চরিত্রে ডাকোটা জনসন

ফিফটি শেডস অফ গ্রে-তে সাড়া ফেলেছেন। এবার তাঁর চরিত্রের অভিনয় আনফিট ফিল্মে।

কোর্টরুম ড্রামা আনফিট। অ্যাডাম কোহেনের বই “Imbeciles: The Supreme Court, American Eugenics, and the Sterilization of Carrie Buck” অবলম্বনে তৈরি হচ্ছে ছবিটি।

বাক ভার্সেস বেল। ক্যারি বাক ও জন হেনড্রেন বেলের মধ্যে চলেছিল মামলাটি। সেখানে বাক ছিলেন বাদিপক্ষ। বিচারপতি অলিভার ওয়েনডেল হোমস জুনিয়র এই আইনটি লিপিবদ্ধ করেন। অ্যামেরিকার সুপ্রিম কোর্ট এক বিতর্কিত রায় দিয়েছিল। বলা হয় শারীরিক ও মানসিকভাবে কেউ যদি প্রতিবন্ধী হয়, তবে সে আনফিট। রাষ্ট্রের স্বার্থে সে সন্তানের জন্ম দিতে পারবে না।

কারণ সে অক্ষম। সে যেই জিনের বাহক, সন্তানের মধ্যে যদি সেই জিনের সামান্যতমও আসে তা রাষ্ট্রের জন্য ক্ষতিকর। তাই সেই ব্যক্তিকে অবশ্যই নির্বীজকরণ করাতে হবে।

মামলার সূত্রপাত ১৯২৪ সালে। ভার্জিনিয়া স্টেট কলনি ফর এপিলেপটিক্স অ্যান্ড ফিবলেমাইন্ডেড-এর সুপারিনটেন্ডেন্ট অ্যালবার্ট সিডনি প্রিড্ডি ক্যারি বাকের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। তাঁর অভিযোগ ছিল বাকের বয়স ১৮ বছর। কিন্তু মানসিকভাবে তিনি ৯ বছরের কিশোরী। তাঁর ৫২ বছর বয়সী মা-ও মানসিকভাবে ৮ বছরের। তার তিন সন্তান আছে। তাদের মধ্য ক্যারিও অন্যতম। বাককে বন্ধ্যা করে দেওয়া হয়।

প্রিড্ডির মৃত্যুর পর সেই মামলা আসে জন হেনড্রেন বেলের হাতে। বোর্ড বাকের বিরুদ্ধে রায়দান করে। কিন্তু ক্যারির অভিভাবকরা মামলা ভার্জিনিয়ার সুপ্রিম কোর্টে নিয়ে যায়। সেখানেও হার হয় ক্যারি বাকের। ১৯৮৩ সালে ৭৬ বছর বয়সে তিনি মারা যান।

এই মামলাটি এবার উঠে আসবে পর্দায়। ফিল্মের নাম আনফিট। ক্যারি বাকের চরিত্রে অভিনয় করতে চলেছেন ডাকোটা  জনসন। তিনি জানিয়েছেন, অনেকের মতো তিনিও এই ঘটনা মেনে নিতে পারেন না। অ্যামেরিকার বিচারব্যবস্থার এই ঘটনা মর্মান্তিক। প্রশাসন ও মহিলাদের সম্পর্কের উপর এটি প্রভাব ফেলেছিল। এই গল্পটি সবার সামনে তুলে ধরার সুযোগ পেয়ে তিনি সম্মানিত।

 


মন্তব্য