kalerkantho


ভাষার জন্য আবুল হায়াতের ভালোবাসা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২০:৫৪



ভাষার জন্য আবুল হায়াতের ভালোবাসা

প্রায় পাঁচ দশকের অভিনয় জীবন তাঁর। মঞ্চ, টিভি নাটক, বিজ্ঞাপন, চলচ্চিত্র, নির্মাণ এবং সাহিত্যে- তিনি নিজেকে ছড়িয়েছেন দু’হাতে।

এখনও প্রতিটি ক্ষেত্রে দর্প নিয়ে চুটে চলেছেন সামান তালে। তিনি জীবন্ত নন্দিত নাট্যজন আবুল হায়াত। তবে অভিনয় অঙ্গনের সুদীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে তাঁর একটা পথেই পা ফেলা বাকি ছিল এতদিন। সেটি হলো চলমান ট্রেন্ড মিউজিক ভিডিও। মানে অডিও গানের সঙ্গে নির্বাক চিত্রকল্পের মেলবন্ধন ঘটানো।
তার ভাষায়, ‘এটা একটা নিউ মিডিয়া। গেল ক’বছর ধরে লক্ষ্য করছি প্রচুর দৃষ্টিনন্দন মিউজিক ভিডিও হচ্ছে। গানের পাশাপাশি গল্পটাও মানুষ ভিডিওর মাধ্যমে দেখতে চায়। যদিও আমি সেটাকে তরুণ প্রজন্মের বিষয় বলেই ওভারলুক করেছি এতদিন। তবে, এবার সেই ধারণা থেকে নিজেকে বের করে এনেছি। জীবনে প্রথম কোনও গানের ভিডিওতে মডেল হিসেবে কাজ করেছি। এবং কাজটি করে আমি মুগ্ধ। ’
হুম, যা শুনছে সেটাই সত্যি। এবারই প্রথম কোনও মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়েছেন বর্ষিয়ান এই অভিনেতা। এবং সেটি বীর বাঙালি ভাষা শহীদদের উৎসর্গ করে নির্মিত একটি কাজে। যাঁরা ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রæয়ারি বুকের তাজা রক্তে রাঙিয়েছেন বাংলা ভাষাকে মাতৃভাষা করার দাবিতে।
আবুল হায়াত জানান, বাংলা ভাষা এবং ভাষা শহীদদের নিয়ে নির্মিত এই মিউজিক ভিডিওতে উঠে এসেছে আধুনিকতার নামে বর্তমান বাংলাদেশ এবং বায়ান্নর বীরত্বের কথা। যা ক্যামেরার চোখে চিত্রকল্পে তুলে এনেছেন নির্মাতা ইয়ামিন এলান। সিএমভি’র ব্যানারে সদ্য নির্মিত ভিডিওটিতে আবুল হায়াতের সঙ্গে মডেল হিসেবে আছেন রিফা।  
লালন লোহানির গীতরচনায় ‘বায়ান্ন’ শিরোনামের গানটির কথা এমন- ওরা ইংরেজিতে বললে কথা নিজেকে ভাবে ধন্য, আমি হাসবো না কাঁদবো... ওরে ও বায়ান্ন...। এমন কথার গানটিতে কণ্ঠ ও সুর দিয়েছেন নাজির মাহমুদ। যাকে শ্রোতারা দেশের অন্যতম জনপ্রিয় সুরকার হিসেবে এতদিন জেনে আসছেন। আর গানটির আবেগী সুরের সঙ্গে সংগীতায়োজন করেছেন মুশফিক লিটু।
‘বায়ান্ন’র শিল্পী-সুরকার নাজির মাহমুদ বলেন, ‘এক জীবনে হাজারো গানের সুর করেছি। তবে সবার চেয়ে আমার কাছে এই গানটি স্পেশাল। কারণ এটি বাংলা ভাষাকে নিয়ে গান এবং নিজের কণ্ঠে গাওয়া গান। ¯^প্ন দেখি বাংলা ভাষা সমুন্নত রাখার সঙ্গে গানটিকেও। ’
আসছে অমর একুশে ফেবরুয়ারি উপলক্ষে গানটি চলতি সপ্তাহে ইউটিউব, জিপি মিউজিক অ্যাপসহ দেশের বেশিরভাগ টিভি চ্যানেলে একযোগে মুক্তি পাচ্ছে সিএমভি’র ব্যানারে। এ প্রসঙ্গে প্রযোজনা-পরিবেশনা প্রতিষ্ঠান সিএমভি’র প্রধান এসকে সাহেদ আলী বলেন, ‘প্রেম-বিরহের গানের বাইরেও আমাদের কিছু সামিজিক দায়বদ্ধতা থাকা উচিত। সেই অনুভব থেকেই অনেক স্বপ্ন নিয়ে গানটি প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছি। এরজন্য আমি কৃতজ্ঞ নাজির মাহমুদ ভাই, শ্রদ্ধেয় আবুল হায়াত আঙ্কেলসহ সংশ্লিষ্ট সবার কাছে। ’ 
প্রসঙ্গত, ১৯৬৯ সালে ‘ইডিপাস’ নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে প্রথম টিভি পর্দায় অভিষেক ঘটে আবুল হায়াতের।  
গানটির ট্রেলার দেখুন:

 


মন্তব্য