kalerkantho


আদালতে নকল জন্মসনদ দিয়ে বিপাকে অভিনেতা ধনুষ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আদালতে নকল জন্মসনদ দিয়ে বিপাকে অভিনেতা ধনুষ!

মাদ্রাজ হাইকোর্টে নকল জন্মসনদ জমা দিয়েছেন রজনীকান্তের জামাই, অভিনেতা ধনুষ। আদালতে এমনটাই দাবি করলেন এক বৃদ্ধ দম্পতি। ওই দম্পতির দাবি, ধনুষ তাদের ছেলে। তাদের দেখাশোনার ভার তাকে নিতে হবে।

অভিযোগকারী দম্পতির নাম আর কাথিরেসান ও মীনাক্ষী। তাদের বক্তব্য, ধনুষ তাদের ছেলে, ছোটবেলায় বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন। তারা বৃদ্ধ হয়েছেন, নিজেদের খরচ মেটানোর সামর্থ্য নেই। অতএব ধনুষকে প্রতি মাসে তাদের ৬৫,০০০ টাকা করে দিতে হবে। স্থানীয় মেলুর নিম্ন আদালতে তাদের আবেদন খারিজ হয়ে যাওয়ায় গতকাল স্থানীয় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে এফিডেভিট জমা দিয়ে তারা ফের দাবি করেছেন, ধনুষ তাদের ছেলে, তা তারা প্রমাণ করতে পারবেন।

এই মামলায় ২৫ তারিখ মাদ্রাজ হাইকোর্টে যান ধনুষ। ওই দম্পতির দায়ের করা মামলা খারিজের আবেদন করেন তিনি।

তার দাবি, সংশ্লিষ্ট দম্পতি তাকে ব্ল্যাকমেল করার চেষ্টা করছেন। ধনুষ আদালতে যে কাগজপত্র জমা দিয়েছেন, তাতে দেখা যাচ্ছে, তার জন্ম ১৯৮৩ সালের ২৮ জুলাই। বাবা কৃষ্ণমূর্তি ও মা বিজয়ালক্ষ্মী। সার্টিফিকেটে নামের উল্লেখ না থাকলেও তিনি জানিয়েছেন, জন্মের পর তার নাম রাখা হয় আর কে ভেঙ্গাদেশা প্রভু। পরে এফিডেভিট করে তিনি নিজের নাম কে ধনুষ রাখেন। কিন্তু ওই দম্পতির দাবি, যে জন্ম সনদ ধনুষ হাইকোর্টে জমা দিয়েছেন তা জাল। তাদের বক্তব্য, ধনুষ তাদের তৃতীয় সন্তান, তার জন্ম ১৯৮৫ সালের ৭ নভেম্বর, স্থানীয় গভর্নমেন্ট রাজাজি হাসপাতালে। তখন নাম ছিল কালাইসেলভান। মাদুরাইয়ের স্কুলে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন তিনি। তারপর ভর্তি হন শিবগঙ্গা জেলার তিরুপাত্তুরের একটি বেসরকারি স্কুলে। এই সময় সিনেমা করতে চেন্নাই পালিয়ে যান তিনি। তখন আর ছেলের সন্ধান পাননি তারা। পরে ছবির পর্দায় তাকে দেখে চিনতে পারেন হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে।


মন্তব্য