kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বলিউডের যারা গিনেস বুকে নাম লিখেছেন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:০৮



বলিউডের যারা গিনেস বুকে নাম লিখেছেন

বলিউডের অনেক সেলেব্রিটি গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুলেছেন। কেউ পেশার জন্য, কেউ প্রচারের জন্য, কেউ আবার অন্য কিছুর জন্য।

অমিতাভ বচ্চন

অভিনয় জগতে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী কমই আছে। কিন্তু অভিনয়ের জন্য নয়। গানের জন্য গিনেস বুকে নাম তুলেছেন অমিতাভ বচ্চন। হনুমান চল্লিশার একটি ভার্সন অ্যারেঞ্জ করেছিলেন শঙ্কর রবজিয়ানি। সেখানে গলা দিয়েছিলেন অমিতাভ। অমিতাভ ছাড়া আরও ১৯জন গলা দিয়েছিলেন সেখানে। আদর্শ শ্রীবাস্তব, অভিজিৎ, বাবুল সুপ্রিয়, হংসরাজ হান্স, কৈলাশ খের, কে কে, কুমার শানু, কুণাল গাঞ্জাওয়ালা, মনোজ তিওয়ারি, মুকুল আগারওয়াল, প্রসূন যোশি, রূপকুমার রাঠোর, সোনু নিগম, সুখবিন্দর সিং, সুরেশ ওয়াড়কর, উদিত নারায়ণ ও বিনোদ রাঠোর।

ক্যাটরিনা কাইফ

এখন বলিউডের সবচেয়ে আয় করে এমন হিরোইন বলতে গেলে কঙ্গনা রানাওয়াত, দীপিকা পাড়ুকোন বা প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার নাম আসে। ক্যাটরিনা আসেন একটু নিচের দিকে। কিন্তু শুনলে আশ্চর্য হবেন, সবচেয়ে বেশি উপার্জন করা হিরোইন হিসেবেই গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে জায়গা করে নিয়েছেন ক্যাটরিনা। ২০১৩ সালে তাঁর আয় ছিল ৬৩.৭৫ কোটি টাকা।

শাহরুখ খান

গিনেস বুকে স্থান করে নিয়েছেন বলিউডের বাদশাও। তিনিও পারিশ্রমিকের জন্যই গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেয়েছেন। ২০১৩ সালে তিনি সবচেয়ে বেশি আয় করেছিলেন। তাঁর আয় ছিল ২২০.৫ কোটি টাকা।

অভিষেক বচ্চন

খুব কমজনই জানেন অভিষেক বচ্চনও গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের অধিকারী। দিল্লি ৬-এর প্রোমোশনের সময় এই রেকর্ড করেন তিনি। ১২ ঘণ্টার মধ্যে সবচেয়ে বেশিবার পাব্লিক অ্যাপিয়ারেন্স দেওয়ার জন্য গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেয়েছেন অভিষেক। গাজ়িয়াবাদ, নয়ডা, ফরিদাবাদ, চণ্ডীগড় ও মুম্বইয়ে পাব্লিক অ্যাপিয়ারেন্স দেন তিনি। অভিষেকের আগে এই রেকর্ড ছিল জার্মান অভিনেতা জর্জেন ভোগেল ও ড্যানিয়েল ব্রোহির কাছে।

কাপুর বংশ
কাপুর পরিবার বলিউডে একমাত্র পরিবার যারা গত ৫ যুগ ধরে ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করছে। প্রথম পৃথ্বীরাজ কাপুর বলিউডে কাজ করা শুরু করেন। আজ রণবীর কাপুর, কারিনা কাপুর খান চুটিয়ে কাজ করছেন ইন্ডাস্ট্রিতে। কাপুর পরিবারের মোট ২৫জন বলিউড ছবিতে অনস্ক্রিনে কাজ করেছেন। বলিউডে এখন কাপুর বংশ একটি ব্র্যান্ড। এই কারণেই গিনেস বুকে স্থান পেয়েছে কাপুর পরিবার।

অশোককুমার

অশোককুমার হলেন সেই অভিনেতা, যিনি বলিউডের সবচেয়ে বেশি ছবিতে প্রধান ভূমিকায় অভিনয় করছেন। এই কারণেই তিনি গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেয়েছেন। তাঁর প্রথম ছবি ছিল অচ্ছুৎ কন্যা। সেই থেকে তিনি টানা ৬৩ বছর পর্যন্ত প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

ললিতা পাওয়ার

বলিউডে সবচেয়ে বেশিদিন কাজ করার জন্য গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেয়েছেন অভিনেত্রী ললিতা পাওয়ার। ১২ বছর বয়সে তিনি ইন্ডাস্ট্রিতে আসেন। ক্রামাগত ৭০ বছর ধরে তিনি অভিনয় করেন। বিভিন্ন ভাষায় ৭০০-রও বেশি ছবি করেছেন তিনি।

সমীর আঞ্জান

সবচেয়ে বেশি গান লেখার জন্য গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুলেছেন সমীর আঞ্জান। ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনি ৩ হাজার ৫২৪টি গান লিখেছেন। বলিউডে এতগুলো গানের লিরিক্স কেউ লেখেননি। তাঁর কয়েকটি গান হল- জব সে তেরে নয়না (সাওরিয়া), তুম পাস আয়ে (কুছ কুছ হোতা হ্যায়), নজ়র কে সামনে (আশিকি)।

কুমার শানু
একদিনে সবচেয়ে বেশি গান রেকর্ড করার রেকর্ড গড়েছেন কুমার শানু। ১৯৯৩ সালে এই কারণে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে জায়গা পেয়েছেন তিনি। একদিনে তিনি ২৮টি গান রেকর্ড করেন।

আশা ভোঁসলে

বলিউডে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সোলো গান গেয়েছেন আশা ভোঁসলে। মোট ১১ হাজারটি সোলো গান গেয়েছেন তিনি। ১৯৪৭ সাল থেকে তিনি ২০টি ভারতীয় ভাষায় গান গাইছেন। ২০১১ সালে তিনি গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পান। বলিউডে অনেক এভারগ্রিন গান গেয়েছেন তিনি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- দম মারো দম (হবে রাম হরে কৃষ্ণ), পিয়া তু আব তো আজা (ক্যারাভ্যান), তুরা লিয়া হ্যায় তুমনে জো দিলকো (ইয়াদোঁ কি বারাত) ইত্যাদি।

জগদীশ রাজ

টাইপকাস্ট অ্যাক্টর হিসেবে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেয়েছেন তিনি। ১৪৪টি ছবিতে তিনি পুলিশ অফিসারের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। তাঁর কয়েকটি ছবি হল- দিওয়ার, ডন, শক্তি, সিলসিলা।

সোনাক্ষী সিনহা

এবছর মার্চ মাসে মুম্বইয়ের প্যালাডিয়ামে একসঙ্গে প্রায় কয়েক হাজার মহিলা বসে নেলপলিশ পরেন। তাঁদের মধ্যে একজন ছিলেন সোনাক্ষী সিনহা। পোল্যান্ডের কসমেটিক ব্র্যান্ড ইংগ্লট ভারতীয় সংস্থায় মেজর ব্র্যান্ড ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের সঙ্গে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে।

 


মন্তব্য