kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাংলাদেশের বন্ধু বব ডিলান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ অক্টোবর, ২০১৬ ১৭:৫৫



বাংলাদেশের বন্ধু বব ডিলান

বব ডিলানকে কে বলা হয় Rebel King of the Rock. মূল নাম রবার্ট অ্যালেন জিমারম্যান (জন্ম ২৪ মে, ১৯৪১) । বব ডিলান মার্কিন কিংবদন্তি গায়ক-গীতিকার, মিউজিশিয়ান, চিত্রকর ও কবি।

গত পঞ্চাশ বছর ধরে জীবনমূখী গানের ধারায় হয়ে আছেন অন্যতম পথিকৃৎ।

ডিলানের প্রথমদিককার গানের কথা ছিল মূলত রাজনীতি, সমাজ, দর্শন ও সাহিত্যিক প্রভাব সম্বলিত। এগুলো তখনকার জনপ্রিয় ধারার কথিত নিয়ম বহির্ভূত ছিল এবং এ ধারার বিপরীত হিসেবে ধরা হত। নিজস্ব সঙ্গীত ধারা প্রসারের পাশাপাশি তিনি আমেরিকার বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী সঙ্গীতের প্রতি আকর্ষণ অনুভব করেছেন। তিনি আমেরিকান লোকগীতি ও কান্ট্রি/ব্লুজ থেকে রক অ্যান্ড রোল, ইংরেজ, স্কটিশ, আইরিশ লোকগীতি, এমনকি জ্যাজ সঙ্গীত, সুইং, ব্রডওয়ে, হার্ডরক এবং গসপেলও গেয়েছেন।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীণ সময়ে বাংলাদেশের শরণার্থীদের সহযোগিতার উদ্দেশ্যে নিউইয়র্কের মেডিসন স্কয়ার গার্ডেনে বাংলাদেশকে নিয়ে দ্য বিটল্‌স ব্যান্ডের জর্জ হ্যারিসন ও ভারতীয় সেতার বাদক পন্ডিত রবি শংকর কর্তৃক আয়োজিত 'কনসার্ট ফর বাংলাদেশ' এ সময়ের সব মানবতাবাদী ও যুদ্ধবিরোধী সেলিব্রেটিদের মাঝে বব ডিলান ও পারফর্ম করেছিলেন । সে জন্যেই বাংলাদেশীদের হৃদয়ে বব ডিলান বিশেষ আসন পেয়েছেন।

ডিলান সাধারণত গিটার, কিবোর্ড এবং হারমোনিকা বাজিয়ে গান করেন। ১৯৮০ দশক থেকে কিছু সংগীতজ্ঞকে সাথে নিয়ে তিনি নিয়মিত বিভিন্ন সঙ্গীত ভ্রমণ করে থাকেন যা তার ভাষায় "নেভার এন্ডিং ট্যুর"। তিনি প্রধান অনেক শিল্পীর সাথে একত্রে কাজ করেছেন, যেমন, দ্য ব্যান্ড, টম পেটি, জোয়ান বায়েজ, জর্জ হ্যারিসন, দ্য গ্রেটফুল ডেড, জনি ক্যাশ, উইলি নেলসন, পল সিমন, এরিক ক্ল্যাপটন, প্যাটি স্মিথ, ইউ২, দ্য রোলিং স্টোনস, জনি মিচেল, জ্যাক হোয়াইট, মার্লে হ্যাগার্ড, নেইল ইয়ং, ভ্যান মরিসন, রিঙ্গো স্টার এবং স্টিভি নিকস। যদিও তার ক্যারিয়ারে গায়ক হিসেবেই তিনি বেশি পরিচিত এবং সফল হয়েছেন, তবে গীতিকার হিসেবেই তার অবদানকে বেশি মূল্য দেয়া হয়।

তার রেকর্ডের ফলে তিনি গ্রামি এ্যাডওয়ার্ড, গোল্ডেন গ্লোব এবং অ্যাকাডেমি পুরস্কার জিতেছেন এবং রক অ্যান্ড রোল হল অব ফেম, ন্যাশভিল সংরাইটার্স হল অব ফেম, ও সংরাইটার্স হল অব ফেম এ তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। টাইম ম্যাগাজিনের প্রকাশিত বিংশ শতকের শ্রেষ্ঠ ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকায় তার নাম রয়েছে। ২০০৪ সালে রোলিং স্টোন ম্যাগাজিন প্রকাশিত সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ১০০ গায়ক তালিকায় দ্য বিটলসের পর বব ডিলন দ্বিতীয় অবস্থান দখল করেছেন।

 ১৯৯০ সালের জানুয়ারিতে ডিলনকে ফরাসি সংস্কৃতি মন্ত্রী জ্যাক ল্যাং কর্তৃক কমান্ডার দেস আর্টস এট দেস লেটার্স উপাধিতে ভুষিত করেছেন; ২০০০ সালে রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব মিউজিক তাকে পোলার মিউজিক পুরস্কার প্রদান করে; এবং ২০০৭ সালে ডিলনকে সংস্কৃতিতে প্রিন্স অব অস্ট্রিয়াস পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে। তিনি কয়েকবার নোবেল সাহিত্য পুরস্কার এর জন্য মনোনীত হলেও এ বছর (২০১৬) নোবেল পুরস্কার পেলেন।

 


মন্তব্য