kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দৃষ্টিহীনদের জীবন সংগ্রাম এবং স্বপ্ন পূরণের গল্প

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:০৬



দৃষ্টিহীনদের জীবন সংগ্রাম এবং স্বপ্ন  পূরণের গল্প

২০১২ সালের ১২ জুন  'বিশ্বময় বাংলাদেশ' শ্লোগান নিয়ে যাত্রা শুরু করা বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল জিটিভি,  তিন বছরের পথপরিক্রমা শেষে ২০১৫ সালের ১২ জুন  'যা দেখতে চান পাবেন' শ্লোগান নিয়ে দর্শকের সামনে হাজির হয় নতুন রূপে। নতুন লোগোর সাথে জিটিভির পর্দায় অনুষ্ঠান আর সংবাদে নতুনত্ব দর্শককে দিয়েছে ভিন্ন স্বাদ।

সবার আগে দর্শক এই লক্ষ্য নিয়ে জিটিভি দর্শক চাহিদা পূরনে চেষ্টা করে যাচ্ছে নিরন্তর। দর্শক জরিপের উপর ভিত্তি করে অনুষ্ঠান নির্মাণের পাশাপাশি গত তিনটি ঈদে জিটিভি দর্শকদের উপহার দিয়েছে বিজ্ঞাপন বিরতিহীন  স্বপ্নের ঈদ আয়োজন। ক্রিকেট, ফুটবলসহ খেলাধূলার মেগা ঈভেন্টগুলো দর্শকের কাছে পৌছে দিচ্ছি আমরা। আর এ সব আয়োজনের মূল লক্ষ্য দর্শকের পরিপূর্ন বিনোদন, কারন আমাদের প্রতিশ্রুতি  ”যা দেখতে চান পাবেন”। কিন্তু সবাই কি যা দেখতে চায়, সেটা পায় ?
দেশের দৃষ্টিহীন জনগোষ্ঠীর একটি বড় অংশ ছানিসহ চোখের বিভিন্ন সমস্যায় পার করছেন দৃষ্টিহীন জীবন। জগত যাদের কাছে অন্ধকার, তাদের  জন্য ”যা দেখতে চান পাবেন” হয়তো নিতান্তই অর্থহীন এক প্রতিশ্রুতি। কিন্তু জিটিভি বিশ্বাস করে যে যা দেখতে চায় , সেটা দেখা তার অধিকার। তাই দর্শকের ভালোবাসা  এবং সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে এমন হাজারো মানুষের জীবনকে অর্থপূর্ণ করতে জিটিভির ভিন্ন এক উদ্যোগ  'স্বপ্ন দেখে চোখ। ' বেসরকারি  সংস্থা সাইট সেভার্সের কারিগরি সহযোগিতায় দৃষ্টিহীন মানুষের চোখের আলো ফিরিয়ে দেয়া এবং তাদের স্বপ্নপূরনের গল্প নিয়ে তৈরী হয়েছে  এই অনুষ্ঠান। প্রতিটি পর্বে একজন দৃষ্টিহীনের জীবন সংগ্রাম, তার স্বপ্ন , এবং চোখ অপারেশনের পর তার বদলে যাওয়া জীবন এবং স্বপ্নপূরণের কাহিনী  উঠে আসবে এই অনুষ্ঠানে। ‘স্বপ্ন দেখে চোখ’ এর মাধ্যমে জীবন বদলে যাওয়া তেমনই এক যুবক শেরপুরের সামিউল। মাত্র ছয় মাস বয়স থেকে চোখের আলো হারিয়েছে যে। আধার ভরা শৈশব কৈশোরে সামিউলকে  পাড়ি দিতে হয়েছে জীবন সংগ্রামের এক লম্বা পথ। কিন্তু এমন কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেও  সামিউল ভালোবেসেছে ক্রিকেটকে।   সামিউলের স্বপ্ন  ছিলো একদিন ফিরবে চোখের  আলো। স্টেডিয়ামে হাজারো দর্শকের সাথে বাংলাদেশের খেলা দেখেবে সেও।
জিটভি এবং সাইটসেভার্সের  যৌথ উদ্যোগে  সামিউল ফিরে পেয়েছে দৃষ্টি। এবার তার আরেকটি স্বপ্ন পূরনের পালা। আগামী ৯ অক্টোবর বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ দেখতে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে আসছে সামিউল। সামিউলের স্বপ্নপূরনের মধ্য দিয়ে ‘স্বপ্ন দেখে চোখ’ শুরু করবে তার আনুষ্ঠানিক যাত্রা। খুব শিঘ্রই জিটিভির পর্দায় দেখা যাবে ‘স্বপ্ন দেখে চোখ’ অনুষ্ঠানটি।   জিটিভি বিশ্বাস করে, ‘স্বপ্ন দেখে চোখ’ শুধুমাত্র একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠান নয়, বরং হাজারো অদেখা জীবনের  সুখ দু:খের প্রতিফলন। দৃষ্টিহীনদের দৃষ্টি ফিরিয়ে দেয়ার মধ্য দিয়ে জিটভি আরো দৃঢ় প্রত্যয়ে বলতে চায় ‘যা দেখতে চান পাবেন’।

 


মন্তব্য