kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কিশোর বয়স থেকেই বিয়েপাগল ছিলেন ফাওয়াদ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:৩৩



কিশোর বয়স থেকেই বিয়েপাগল ছিলেন ফাওয়াদ!

হালের আলোচিত বলিউডের পাকিস্তানি তারকা ফাওয়াদ খানকে প্রথম দেখাতেই সুপুরুষ সার্টিফিকেট দেওয়া যেতে পারে। বহু নারীর বুকে কাঁপন ধরাতে যা যথেষ্ট।

কিন্তু তিনি বিবাহিত। সম্প্রতি পৃথিবীতে এসেছে তাদের দ্বিতীয় সন্তান। তবে জানেন কি, কিশোর বয়সেই স্ত্রী সাদাফকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন তিনি?

ফাওয়াদ সম্প্রতি নিজের মুখেই বলেছেন তার প্রেম কাহিনি। তার ভাষায়, “আমার তখন ১৭ আর ওর ১৬। আমার ওর সঙ্গে অনলাইনে আলাপ হয়। আমাকে আমার মা-বাবা খুব একটা বাড়ি থেকে বেরোতে দিত না। হয়তো মাসে একদিন বন্ধুদের সঙ্গে বেরোতে পারতাম।

তাই আমার বন্ধুরা আমাকে বিভিন্ন মেয়ের খবরাখবর দিত। আমার ছোটবেলার এক বন্ধু সাদাফকে চিনতো। আমি ওর মাধ্যমে সাদাফকে খবর পাঠাই যে আমি ওর সঙ্গে দেখা করতে চাই। কিন্তু আশ্চর্জজনক ভাবে আমি যার সঙ্গে অনলাইনে চ্যাট করেছিলাম আর যার সঙ্গে আমার দেখা হলো তারা এক নয়।

সেই সময় আমি ডেট করার উদ্দেশ্য নিয়ে সেই মহিলার সঙ্গে দেখা করি নি। তবে দেখা করে বুঝলাম এ সে নয়। পরে অবশ্য সাদাফের সঙ্গে আমার দেখা হয়। এর বেশ কিছুদিন পরে আবার সাদাফের সঙ্গে আমার দেখা হয়। এইবার টিউশান ক্লাসে। এগারো ক্লাসে ওঠার পর আমরা একই টিউশনে ভর্তি হই। সেই সময়ই আমাদের সম্পর্ক শুরু হয়।

আমাদের সম্পর্ক শুরু হওয়ার ১০ দিনের মাথায় ওকে ফোন করে বিয়ের প্রোপোজাল দিই। আমি ওকে কী বলেছিলাম তার প্রত্যেকটা কথা মনে আছে। ওকে বলি "আমি সারাজীবন তোমার সঙ্গে কাটাতে চাই। তুমি কি আমাকে বিয়ে করবে?"

ও কী বললো জানেন? "তুমি কি পাগল হয়েছো? আমার মাত্র ১৬ বছর বয়েস আর তোমার ১৭। "আমি পরের তিন বছরে সমানে ওকে বিয়ে কারার কথা বলি। অবশেষে চার বছর পরে ও রাজি হয়। "

ফাওয়াদ ও সাদাফের বিয়ের পর এক পুত্র জন্মায়। সম্প্রতি দ্বিতীয়বার আবার বাবা হয়েছেন ফাওয়াদ। এইবার একটা ফুটফুটে কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন তার স্ত্রী সাদাফ।


মন্তব্য