kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


‘বাঙালি মেয়েরা একইসাথে সফট, স্ট্রং আর রূপবতী’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:০৬



‘বাঙালি মেয়েরা একইসাথে সফট, স্ট্রং আর রূপবতী’

বাংলা মিডিয়াম-ইংলিশ মিডিয়ামের রেষারেষি চিরন্তন। অনেক বাঙালিরাই মনে করেন ইংরেজি না বললে 'স্মার্ট' হওয়া যায় না।

এমনও পরিবার আছে যাদের বাচ্চারা ইংলিশ মিডিয়ামে পড়ে; কিন্তু বাংলাটা জানে না! তাদের বাসা এবং স্কুলে বাংলা বলা নিষেধ! এই বাংলা-ইংরেজি বিতর্ক নিয়ে আগামীকাল মুক্তি পেতে যাচ্ছে শুভশ্রী ও ওম জুটির ছবি 'প্রেম কি বুঝিনি'।

ছবিতে শুভশ্রী অভিনয় করেছেন বাংলা মিডিয়ামে পড়া এক বাঙালি মেয়ের ভূমিকায়, যে জীবনের কোনো চ্যালেঞ্জকেই ভয় পায় না। এমন একটা চরিত্র, যে সমানতালে টেক্কা দেয় বিদেশের ছাত্রছাত্রীদের এবং অনেক ক্ষেত্রেই তাদের টপকে যায়। এই ছবির গল্পের সূত্র ধরেই আবারও উঠে এসেছে সেই পুরনো বিতর্ক- বাংলা মিডিয়ামের ছেলেমেয়েরা কি সত্যিই পিছিয়ে পড়েন ইংলিশ মিডিয়ামের ছাত্রছাত্রীদের থেকে?

শুধু সিনেমার চরিত্রে নয়, বাস্তবেও বাংলা মিডিয়ামের ছাত্রী ছিলেন শুভশ্রী। নিজের ইংলিশ স্পোকেন বিশেষ সুবিধার নয়। কিন্তু এটা নিয়ে কোনো আক্ষেপ নেই অভিনেত্রীর। তার মতে, নিজের ভাষায় 'স্ট্রং' হওয়াটাই গৌরবের বিষয়।

ছবিতে বিদেশে যাওয়া এক বাঙালি মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন শুভশ্রী। বাঙালি মেয়েরা কেমন হয়?- প্রশ্ন করলে শুভশ্রী বলেন, "বঙ্গললনারা খুব স্ট্রং হয়। তাদের মধ্যে একটা অ্যাটিটিউড রয়েছে। তারা যেমন সুন্দরী হয় তেমনই তারা ইন্টেলিজেন্ট। বিউটি উইথ ব্রেন যেটা বলা হয়, বঙ্গললনারা সেই রকম। "

আর বিদেশে? শুভশ্রী নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানান। তার মতে, "বাঙালি মেয়েদের মধ্যে একটা অন্য রকম ব্যাপার রয়েছে। আমি যেখানেই গিয়েছি, দেশের মধ্যে বা বাইরে, সব জায়গায় দেখেছি যে বাঙালি মেয়েরা অদ্ভুত ফেমাস। তাদের সম্পর্কে বলা হয় যে তারা পড়াশোনায় খুব ভালো। আবার তাদের রূপেরও খুব খ্যাতি রয়েছে। "

'প্রেম কি বুঝিনি' মুভিতেও এমন এক বঙ্গললনার চরিত্রে দেখা যাবে শুভশ্রীকে। এই চরিত্রে তাকে বাঙালি মেয়ে হিসেবে বাংলা বলার মাঝে ছোটখাট ইংরেজি বলতে হয়েছে। বাঙালি মেয়েরা 'সফট' হলেও প্রয়োজনে কতটা 'স্ট্রং' হতে পারে তা দেখিয়ে দেবেন শুভশ্রী।


মন্তব্য