kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'এক নারীই আমাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়েছিল'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:২৩



'এক নারীই আমাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়েছিল'

রাধিকা আপ্তে, সুরভিন চাওলা, টিসকা চোপড়ার পর এবার কাস্টিং কাউচ নিয়ে মুখ খুললেন সায়মী খের। পরের মাসেই রিলিজ করবে তাঁর প্রথম ছবি মির্জিয়া।

প্রথম ছবি রিলিজের আগে সাধারণত বিতর্কে জড়াতে চান না কেউই। কিন্তু সায়মী ব্যতিক্রম। কাস্টিং কাউচ নিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুললেন তিনি। কবে, কীভাবে তাঁকে কাস্টিং কাউচের শিকার হতে হয়েছিল, তা বিস্তারিত জানাননি তিনি। তবে যা বলেছেন, তাতে স্পষ্ট যে তাঁর সঙ্গেও এমন কিছু ব্যবহার করা হয়েছিল, যা কাম্য নয়।

সায়মী বলেছেন,  আমি জানি পরিবারের কেউ যদি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত থাকে, তাহলে সুযোগ পাওয়া যায় সহজেই। আমার দিদা ঊষা কিরণ ও আমার মাসি তনভি আজমি ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত। কিন্তু আমি তার জন্য বাড়তি কোনও সুবিধা পাইনি। আমাকে অডিশন দিতে হয়েছে। আমি জানি যখন কোনও কিছু ঠিক না হয়, তখন কতটা আশাভঙ্গ হয়। অডিশন দিতে গিয়ে আমাকে অনেক কাস্টিং ডিরেক্টরের মুখোমুখি হতে হয়েছে। তারা আমাকে অনেক কিছু শিখিয়েছে। প্রথম ছবির আগে আমার অনেক অভিজ্ঞতা হয়েছে ইন্ডাস্ট্রিতে।

তবে নার্ভাস ছিলেন না সায়মী। আমি ১৬ বছর বয়সে মডেলিং শুরু করি। আমাদের ফ্যামিলি ফ্রেন্ড সুষমা রেড্ডির কাছে আমি কৃতজ্ঞ। উনি আমাকে বুঝিয়েছিলেন আমাকে কোন ধরনের পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে। এও বলেছিলেন আমি যেন ড্রাগ বা অ্যালকোহলে আসক্ত না হই। প্রেমে না পড়ি। আমি সেই গাইডলাইনগুলো মেনে চলেছি। জানিয়েছেন সায়মী।

কিন্তু তিনি কি কখনও অস্বাভাবিক কোনও পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছেন? সায়মী বলেছেন, খারাপ লাগে যখন ইন্ডাস্ট্রিতে কোনও নারীর সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করা হয়। আমি সেরকম পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছি। কিন্তু আমি সেই  নারীকে মুখের উপর বলে দিয়েছিলাম আমাকে তিনি যেন আর ফোন না করেন। এই ধরনের পরিস্থিতিতে অস্বস্তি হওয়া স্বাভাবিক। ইন্ডাস্ট্রিতে সাপোর্ট সিস্টেম না থাকলে পথ চলা কঠিন। আমি ভাগ্যবতী যে আমার পরিবার আমার সঙ্গে আছে।


মন্তব্য