kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'টাইগার জিন্দা হ্যায়' এবং ফের সালমান ও যশরাজ ফিল্মস এর সঙ্গে কাজ প্রসঙ্গে ক্যাটরিনা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:৫১



'টাইগার জিন্দা হ্যায়' এবং ফের সালমান ও যশরাজ ফিল্মস এর সঙ্গে কাজ প্রসঙ্গে ক্যাটরিনা

ক্যাটরিনা কাইফ ও সালমান ফের জুটিবদ্ধ হচ্ছেন। 'টাইগার জিন্দা হ্যায়' তে তারা প্রথমবারের মতো কোনো সিনেমার সিক্যুয়ালে জুটিবদ্ধ হতে যাচ্ছেন।

আর ক্যাটরিনা এই প্রথম কোনো সিনেমার সিক্যুয়ালে অভিনয় করছেন। আগামী ক্রিসমাসে সিনেমাটি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে।

আর এই সিনেমার মাধ্যমেই চার বছর পর তারা পুনরায় একসঙ্গে কাজ করতে চলেছেন। এ ছাড়া এতে ক্যাটরিনা তার 'প্রিয় বন্ধু' পরিচালক আলী আব্বাস জাফরের সঙ্গেও পুনরায় কাজ করবেন। সিনেমাটিতে কাজের প্রস্তুতি এবং অন্যান্য প্রসঙ্গে ক্যাটরিনা যা বললেন…

আপনি 'টাইগার জিন্দা হ্যায়'-তে কাজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন?
হ্যাঁ, এখন তাই হচ্ছে। আর আমি এটি নিয়ে কথা বলতে পারব।

আলী আপনাকে সিনেমাটি সম্পর্কে কবে জানিয়েছেন?
খুব বেশি দিন হয়নি। সম্ভবত কয়েক সপ্তাহ আগে। আলী আমার একজন প্রিয় বন্ধু। তিনি এমন একজন মানুষ যিনি আমার জীবনে সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ। সুতরাং তিনি যখন বললেন, তিনি এক থা টাইগারের একটি সিক্যুয়াল গল্প লিখেছেন তখন আমি খুবই বিস্মিত হয়েছি। কারণ আমি বিষয়টি জানতাম না। এর চিত্রনাট্য লেখার কাজও প্রায় শেষ হয়ে এসেছে।
এমন একটা জিনিস তার জন্য উৎসাহ-উদ্দীপনাই বয়ে আনে। আর জয়া এবং টাইগারের চরিত্রের সঙ্গে এর কাহিনী মিলবে কিনা তা নিয়েও আশঙ্কা রয়েছে। বিশেষকরে পরিধি ও চরিত্রায়নের ক্ষেত্রে। আর এ বিষয়টি নিয়েই তিনি প্রথম কথা বলেছেন। তবে এটিকে সামনে এগিয়ে নেওয়ার জন্যও তিনি একটি উপায় খুঁজে বের করেছেন। যা খুবই উত্তেজনাপূর্ণ।

আপনি কি সঙ্গে সঙ্গেই হ্যাঁ বলে দিয়েছেন?
তিনি আমাকে সিনেমাটিতে অভিনয় সম্পর্কে জিজ্ঞেস করেন নি। তিনি শুধু আমাকে গল্পটি শুনিয়েছেন। তিনি খুবই চুপচাপ স্বভাবের এবং গোপন জীবন-যাপন করেন। ফলে আলী কী নিয়ে কাজ করছেন তা আপনি কখনোই জানতে পারবেন না। যদি না তিনি নিজে বলেন তিনি কী করছেন। তিনি হয়তো কিছু না বলেই অদৃশ্য হয়ে গেলেন। এরপর সবকিছু নিয়ে হাজির হলেন। সুতরাং তিনি যখন আমাকে সিনেমাটির গল্প বলছিলেন আমি জানি তিনি সেটি প্রস্তুত করেই এনেছেন। আমার বেশ পছন্দ হয়েছে।

এটাই আপনার প্রথম সিক্যুয়েল সিনেমা…
তবে আমি সবসময়ই ভাবতাম এক থা টাইগারের একটি সিক্যুয়াল অবশ্যই বানানো হবে। সিনেমাটির নাম থেকেই তা অনুমান করা যায়। আর ঈশ্বরকেও ধন্যবাদ। অবশেষে সিনেমাটির সিক্যুয়াল বানানো হচ্ছে।

টাইগার জিন্দা হ্যায় এর শুটিং কবে শুরু হবে?
আগামী বছরের প্রথমদিকে কোনো একসময়। আর এর পরের ক্রিসমাসেই সিনেমাটির কাজ শেষ হয়ে এটি হলগুলোতে মুক্তি পাবে।

আপনি কি সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য বিশেষ কোনো ধরনের মার্শাল আর্টের প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন?
সিনেমাটিতে আমি ঠিক কী করতে যাচ্ছি তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে বিশেষ কিছু একটা চমক তো থাকবেই। শুটিংয়ের দু্ই মাস আগে থেকে আমি প্রশিক্ষণ নেওয়া শুরু করব। এক থা টাইগারের অ্যাকশন ভালো লেগে থাকলে এবারের সিনেমাটি আপনাকে আরো চমৎকৃত করবে। আমি শুধু এটুকুই বলব।

আগের সিনেমায় আপনার ভুমিকাটি এমনকি সালমানের সঙ্গে তুলনা করলেও গুরুত্বপূর্ণ ছিল বলা যায়। এবারও কি তেমন কিছু হবে?
অবশ্যই। এবারের গল্পেও তেমন কিছুই থাকছে। আলী এবং আদি আমাকে সবসময়ই এমন সব ভুমিকায় অভিনয় করতে দিয়েছেন যা ছিল উত্তেজনাপূর্ণ এবং চ্যালেঞ্জিং।

টাইগার জিন্দা হ্যায়তে চার বছর পর সালমানের সঙ্গে অভিনয় করতে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে আপনার অনুভূতি কী?
টাইগার জিন্দা হ্যায়তে সালমানের সঙ্গে ফের একসঙ্গে অভিনয় করতে পারব ভেবে আমি খুবই আনন্দিত। আর সিনেমাটির মাধ্যমে ফের একত্রিত হতে পারব ভেবে আমি সত্যিই খুব সুখী। এই মুহূর্তে সালমান এবং আমার জন্য এই সিক্যুয়ালটিকেই যথাযথ মনে হচ্ছে। এক থা টাইগারের শুটিং সেটেও আমরা টাইগার এবং জয়া হিসেবে পরস্পরের সঙ্গে খুবই সাবলীলভাবে অভিনয় করেছি। আমি মনে করি এটিতেও আমরা ভালো করব। আর সিনেমার সেটে পুনরায় একত্র হওয়াটাও বেশ আনন্দদায়ক হবে।

গত কয়েকবছর তার সঙ্গে আপনার সম্পর্ক কেমন ছিল?
একজন অভিনেতা হিসেবে তিনি আমাকে সব সময়ই এটাই স্মরণ করিয়ে দেন, কাজ করে কখনোই আত্মতুষ্টিতে ভুগবে না। দর্শকের দৃষ্টিতে তিনি যতই সফল বলে বিবেচিত হন ততই তিনি আরো কঠোর পরিশ্রম করেন। আর দিনকে দিন তার অভিনয় দক্ষতাও বেড়ে চলেছে।

এক থা টাইগারের ক্যাটরিনা কি বদলে গেছেন?
আমি মনে করি আমার মধ্যে এবং আমার জীবনের অনেক কিছুই বদলে গেছে। আমার চারপাশের দুনিয়াও বদলে গেছে। পরিবর্তনই আমার জীবনের একমাত্র সত্য।

শোনা গেছে সালমানের চরিত্র টাইগার নাকি এই সিনেমায় বুড়িয়ে গেছেন?
এটা পুরোপুরি ভুল কথা। তিনি আদৌ বুড়িয়ে যাননি। সিনেমাটি বর্তমানের প্রেক্ষিতে নির্মিত হচ্ছে। একটি বিশেষ সময়কালের মধ্যে এর গল্প আবর্তিত হয়েছে। আগে-পিছে বলে কিছু নেই।

আগের সিনেমাটি যেখানে শেষ হয়েছে সেখানেই কি এবারেরটির গল্প শুরু হয়েছে?
হ্যাঁ, এটি সত্যিকার অর্থেই একটি সিক্যুয়াল সিনেমা। এক থা টাইগারকে আমরা যেখানে ফেলে এসেছি ঠিক সেখানেই এবারেরটির গল্প শুরু হয়েছে।
সূত্র : ডিএনএ ইন্ডিয়া


মন্তব্য