kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


স্বামীর জন্যই আত্মহত্যা করেছেন জিম ক্যারির স্ত্রী!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:২০



স্বামীর জন্যই আত্মহত্যা করেছেন জিম ক্যারির স্ত্রী!

প্রায় বছরখানেক আগে আত্মহত্যা করেছেন তিনি! কিন্তু তাঁর সুইসাইড নোট জনসমক্ষে এল এবার! মৃত্যুর আগে লিখে যাওয়া সেই চিঠি জানাচ্ছে, স্বামী জিম ক্যারির জন্যই আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হন ক্যাথরিওনা হোয়াইট!

মাত্র ৩০ বছর বয়সেই পৃথিবী ছেড়ে চলে যান ক্যাথরিওনা। জানা গিয়েছিল, জিম ক্যারির প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী কেনা পেন কিলার আর ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

সেই প্রেসক্রিপশনে যদিও পৃথিবীবিখ্যাত এই হলিউড নায়কের আসল নামটি ছিল না। নাম লেখা ছিল আর্থার কিং! এই নামটি নিয়েও যথেষ্ট পানি ঘোলা হয়েছিল সেই সময়। এবং, দাবি করেছিলেন ক্যারি, তিনি নিজে ওই ওষুধগুলো ক্যাথরিওনাকে কিনে দেননি! ওগুলো তিনি কিনেছিলেন নিজের ব্যবহারের জন্য। ক্যাথরিওনা তাঁর বাড়ি থেকে ওগুলো চুরি করেছেন!

চুরি? জিম ক্যারির বাড়ি থেকে?

ঘটনাসূত্র বলছে, মৃত্যুর আগেই সম্পর্ক ভেঙে গিয়েছিল ক্যারি আর ক্যাথরিওনার! বয়সে অনেকটাই বড় ক্যারির প্রেমে যখন পড়েন ক্যাথরিওনা, তখনও তিনি জানতেন না একটা নির্মম সত্য। ক্যারিও কোনও দিন জানাননি। কিন্তু, যখনই যৌন রোগে আক্রান্ত হন ক্যাথরিওনা, সত্যটা সামনে আসে! কথাটা জানাজানি হওয়ার পরে যদিও নায়ক অস্বীকার করেছিলেন ব্যাপারটা! বলেছিলেন, তিনি নন, অন্য কারও কাছ থেকে যৌন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ক্যাথরিনা! এবং, ঘটনাটার জন্য তাঁকে দায়ী করায় বেশ কিছু খারাপ গালাগালিও দিয়েছিলেন প্রাক্তন স্ত্রীকে!

প্রাক্তন? হ্যাঁ, ততদিনে ক্যাথরিনার সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছিল জিম ক্যারির! মূলত এই যৌন রোগের ঘটনাটি সামনে আসার জন্যই!

এত দিনে সেই প্রসঙ্গ ফের উঠল! তুললেন ক্যাথরিওনার আরেক স্বামী মার্ক বার্টন। বরাবরই তিনি ক্যাথরিওনার মৃত্যুর জন্য দায়ী করে এসেছেন ক্যারিকে। ক্যাথরিওনাকে নিয়ে তাঁদের এই রেষারেষি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছিল। তারই দ্বিতীয় দফায় ক্যাথরিওনার সুইসাইড নোট প্রকাশ্যে আনলেন বার্টন। এবং, সেই সুইসাইড নোটের বয়ান রীতিমতো বিস্ফোরক।

‘সম্পর্ক ভেঙে গেলে এগোনো যায়। একজনকে ভুলে নতুন করে আরেকজনের সঙ্গে শুরু করা যায় জীবন। কিন্তু, আমার সে সবের উপায় রইল না! যৌন রোগ নিয়ে আমি কী করে নতুন সম্পর্কে যাব? বরাবরের মতো আমি এক ভাঙাচোরা জিনিসে পরিণত হলাম’, জিম ক্যারির সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের পরে এ কথা লিখেছিলেন ক্যাথরিওনা!

সেই কথার সূত্রেই বার্টন ফের আঙুল তুলেছেন ক্যারির দিকে। এও অভিযোগ এনেছেন, অবসাদগ্রস্ত ক্যাথরিওনাকে পেন কিলার আর ঘুমের ওষুধ এনে দেওয়ার মতো কাজ ক্যারি করেছেন সজ্ঞানেই!

নায়কের বক্তব্য?

চেহারার কিছু ফুসকুড়ি যৌন রোগের কারণেই কি না, সেটা তিনি এখনও অস্বীকার করে চলেছেন! বলেছেন, ‘দাড়ি কামালে বা উদ্দাম যৌনতায় থাকলেও এরকম ফুসকুড়ি বেরোয়! অন্যের কথার ভিত্তিতে আমায় এরকম দোষারোপ করা যায় না!’

তবে, বিপদ তাঁর কাটেনি! নতুন করে শুরু হয়েছে তদন্ত। ক্যারির মেডিক্যাল টেস্ট করানোর প্রসঙ্গও উঠেছে তাতে! সব মিলিয়ে বলাই যায়, কর্মফল হয়তো এবারে গ্রাস করবে তাঁর কেরিয়ারকে! যদি ক্যাথরিওনার সুইসাইড নোটের কথাগুলো সত্য প্রমাণিত হয়!

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন


মন্তব্য