kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিগ বি’র মাথায় কিছু নেই: কটাক্ষের জবাব দিলেন অমিতাভ...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০১:৩৫



বিগ বি’র মাথায় কিছু নেই: কটাক্ষের জবাব দিলেন অমিতাভ...

সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি মার্কন্ডেয় কাটজু তাঁর ফেসবুক পোস্টে বলিউড সুপারস্টার অমিতাভ বচ্চনকে আক্রমণ করে বলেন, বিগ বি-র মাথায় কিছু নেই। এরপর তিনি টুইটারে বিগ বি-র ভক্তদের কড়া সমালোচনার মুখে পড়েন।

সেই প্রেক্ষিতে একাধিক টুইট করে প্রাক্তন বিচারপতি তাঁর এ ধরনের বক্তব্যের বিশ্লেষণও দেন।

অবশেষে কাটজুর এই আক্রমণের জবাব দিলেন বিগ বি। তিনি পাল্টা এক সাংবাদিক সম্মেলনে দাবি করেন, কাটজুই ঠিক বলেছেন। তাঁর মাথায় সত্যিই কিছু নেই। তাঁর মস্তিষ্কের ভাবার ক্ষমতা শেষ হয়ে গেছে। বিগ বি-র ভাষায় তাঁর মাথা ‘খালাস’ হয়ে গেছে।

বিগ বি কাটজুর মন্তব্যের প্রেক্ষিতে আরও বলেন, ‘সত্যি আমরা এখন নিজেদের থেকে উদ্যোগ নিয়ে আর কিছু করতে পারি না। আমরা প্রত্যেকেই সেই বিষয়কে সমর্থন করি, যেদিকে সমাজের মূলস্রোত এগিয়ে চলেছে। স্রোতের বিপরীতে যেতে আমরা ভুলেই গেছি’। বিগ বি-কে আক্রমণের পর কাটজু ফের টুইট করে তাঁর বক্তব্যের সমর্থনে এই টুইটটি করেন।

এমনকি অমিতাভকে ব্যক্তিগত আক্রমণও করেছেন সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন এই বিচারপতি। তিনি গতকাল তাঁর ফেসবুক পোস্টে লেখেন আজ তাঁর ৭০ বছরের জন্মদিন। তিনি একেবারেই একান্তে কাটাবেন এই দিনটায়। তাঁর স্ত্রী হয়তো ক্ষীর বানিয়ে দেবেন এবং নিরামিষ খাবার বানাবেন তাঁর জন্যে। এর সঙ্গে সঙ্গে তিনি বলেন, বিগ বি তাঁর ৭০ বছরের জন্মদিনে বিশাল সেলিব্রেশন করেছিলেন। বলিউডের বহু তারকা-মহাতারকারা এসেছিলেন সেখানে। সেই জন্মদিনের উত্সবকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, আমার ছোটবেলায় এভাবে জন্মদিন পালন হত, এখন আর হয় না। কাটজু এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে এই টুইটটি পোস্ট করেন।

প্রসঙ্গত, বিগ বি এবং কাটজু ইলাহাবাদে একই স্কুলে পড়তেন। তারপর অমিতাভ নৈনিতালের শেরউড কলেজে পড়তে চলে যান। সাংবাদিক সম্মেলনে অমিতাভের কাছে জানতে চাওয়া হয়, এটা কী কোনো পুরনো শত্রুতার প্রতিশোধ তুলছেন কাটজু। তার উত্তরে বিগ বি বলেন, ‘তাঁদের মধ্যে কোনো শত্রুতা নেই। কাটজু বিচারপতি ছিলেন, আমাকে তাঁর সামনে হাতজোড় করে দাঁড়াতে হবে, এটাই বাস্তব’, মন্তব্য বিগ বি-র।

বিগ বি তাঁর সাম্প্রতিক মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘পিঙ্ক’-এর প্রচারে সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে গিয়েছিলেন। এই ছবিতে অমিতাভ একজন আইনজীবীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। এই ছবিতে তাঁর অভিনয় সকলের প্রশংসা কুড়োলেও, বোধহয় প্রাক্তন বিচারপতি কাটজুকে খুশি করতে পারেনি।

সূত্র: এবিপি আনন্দ


মন্তব্য