kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কলকাতায় মুক্তি পেল ফেরদৌস-ঋতুপর্ণার পটাদার কীর্তি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১০:৩৪



কলকাতায় মুক্তি পেল ফেরদৌস-ঋতুপর্ণার পটাদার কীর্তি

মুক্তি পেল জিৎ দত্ত পরিচালিত রোম্যান্টিক কমেডি ছবি পটাদার কীর্তি। ছবির সংগীত পরিচালনা করেছেন বাপ্পা লাহিড়ী।

ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্র পটল চরণ দাস। কলকাতার বড় মাফিয়া। সকলের কাছে পটাদা নামেই পরিচিত। কিন্তু, টলিপাড়ার প্রখ্যাত অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর প্রেমে পাগল। দিবারাত্রি ঋতুপর্ণাকে নিয়েই স্বপ্ন দেখে। চায় অভিনেত্রীর সঙ্গে সুখের সংসার করতে। এদিকে পটা দার এই প্রেমের কথা কানে আসে অভিনেত্রীর। শুনে বেশ আপসেট ঋতুপর্ণা।

সাবপ্লেটে আছে ইন্টার গ্যাং কনফ্লিক্ট। এদিকে এসব কিছু দূরে সরিয়ে পটাদার শত্রুপক্ষের ধারণা, তাদের সর্দারের মৃত্যুর পিছনে হাত আছে পটাদার। সব বাধা অতিক্রম করে ঋতুপর্ণার কাছে আসতে চায় পটা।

ঘটনাক্রমে নন্দন নামে এক পরিচালকের সাহায্যে ছবি প্রযোজনা করে পটা। মনে মনে চিন্তা করে যদি কখনও ঋতুপর্ণার কাছে যেতে পারে। কিন্তু, তার আশা পূর্ণ হয় না। শেষমেষ কোনো উপায় না দেখে ঋতুপর্ণাকে কিডন্যাপ করে। জোর করে বিয়েও করে। কিন্তু, সেই মেয়ে যে ঋতুপর্ণা নয়। অন্য কেউ। ঘোমটা দেওয়া থাকায় মধুকে ঋতুপর্ণা ভেবে বিয়ে করে বসে। ব্যাস আর কী! পটার মাথায় হাত!

এদিকে দিন যত এগোতে থাকে পটার প্রেমে পড়ে যায় মধু। কিন্তু পটা কী মধুকে কখনও ভালোবাসতে পারবে? ভুলতে পারবে ঋতুপর্ণাকে? এই মজাদার গল্প নিয়েই তৈরি পটাদার কীর্তি। ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফেরদৌস, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, প্রিয়াংশু চট্টোপাধ্যায়, রাজেশ শর্মা, বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়, শুভাশিস মুখোপাধ্যায়, শ্রেয়া পান্ডে, শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়, বিশ্বনাথ বসু, লামা, পার্থ।  


মন্তব্য