kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঈদের ৫ নাটকে প্রিয়া আমান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২১:০০



ঈদের ৫ নাটকে প্রিয়া আমান

বড় পর্দায় অভিষিক্ত হলেও ছোট পর্দায় বেশ ব্যস্ত সময় অতিক্রম করছেন অভিনেত্রী প্রিয়া আমান।   এবারের ঈদে  ৫টি কয়েকটি নাটকে অভিনয় করলেন তিনি।

  এর মধ্যে মোহন খানের পরিচালনায় ঈদের ৬ পর্বের ধারাবাহিক 'মেঘ রোদ এবং আমি। ' তে অভিনয় করেছেন।   এই নাটকের শুটিং ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় হয়েছে।   তাঁর সাথে রয়েছেন, শরীফ চৌধুরী, রায়হান রিয়াদ ও রিক্তা।  

মোহন খানের আরও ৩টি ঈদের নাটকে কাজ করেছেন প্রিয়া।    'নদী চাইলে সাগর দেবো। '  এই নাটকে অভিনেতা ইমন, সাখাওয়াত সাগর ও অহনা অভিনয় করেছেন।    গাজীপুরের মেঘের ছায়া রিসোর্টে নাটকের শুটিং হয়েছে। এছাড়া  'পিকুলিয়ার' নাটকে প্রিয়ার বিপরীতে রয়েছেন ডিএ তায়েব। নাটকের শুটিং হয়েছে কক্সবাজারে।   'আর যেন দেখা না হয়' এই নাটকেও ডিএ তায়েব রয়েছেন প্রিয়ার সাথে। এটিও কক্সবাজারে শুটিং করা হয়েছে।    

মোহন খানের পরিচালনায় ছাড়াও ঈদে আশরাফ আলিমের পরিচালনায় 'গল্পটা সত্য নয়' নাটকে অভিনয় করেছেন। সিলেটে দৃশ্যায়িত এই নাটকে প্রিয়া আমানের বিপরীতে রয়েছেন অনিক আহমেদ।  

 

 প্রিয়া জানান ঈদের সব ক'টি নাটক উপভোগ্য হবে। দর্শকদের আনন্দ দেবো। তবে  'নদী চাইলে সাগর দেবো' নাটকটি সম্পর্কে একটু বলা যায়। তিনি জানান,  নাটকে  এক ঢাকাইয়া মেয়ে যার, নায়িকা হবার শখ।   নিজের নায়ক হিসেবে ইমনকে পেতে একটা নাটকে বাবার টাকা দিয়ে প্রযোজনা করে। প্রিয়া হয়ে যান তার সহকারী। শুটিং করতে গিয়ে দেখা যায় ঢাকাইয়া সেই মেয়ে কোনো কিছু পারে না। না কথা বলা, না অভিনয়।

কিন্তু প্রিয়া হলো ময়না, নাম যার ময়না কাজও তেমন।   ঢাকাইয়া মেয়ের অসঙ্গতি চোখে পড়ে নায়ক ইমনের। এর ফলে বিরক্ত হন তিনি।   এদিকে ময়নার বিষয়টা তিনি খেয়াল করেন। বেশ চটপটে ও সাবলীল মেয়ে।   ইমন ডিরেক্টরকে বলেন, ময়নাকে নায়িকা বানানো হোক ময়না রূপী প্রিয়া হয়ে যান নায়িকা।  


মন্তব্য