kalerkantho


বাঙালিরা ঘুরেফিরে আমার জীবনে চলেই আসেন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ মার্চ, ২০১৬ ১৬:৩১



বাঙালিরা ঘুরেফিরে আমার জীবনে চলেই আসেন

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ৷ ভারত আর বাংলাদেশ ম্যাচে দুই দেশ একসঙ্গে জিততে পারত না৷ শেষ পর্যন্ত ভারত জিতেছে৷ কিন্ত্ত ভারত আর বাংলাদেশ যদি একসঙ্গে জেতে কেমন হয়? অন্তত চেষ্টা তেমনই৷ দুই দেশের যৌথ প্রযোজনায় নতুন ছবি 'ডুব'৷ যেখানে বাংলাদেশের পক্ষের প্রযোজক জাজ মাল্টিমিডিয়া আর ভারতের পক্ষের প্রযোজক এসকে মুভিজ৷ আরও একজন প্রযোজকের নাম জ্বলজ্বল করছে এই প্রজেক্টে৷ তিনি ইরফান খান৷ এই প্রজেক্টের জন্য ঢাকার পা রাখার পর প্রথম ক'দিন কী কী হলো
বাংলা ছবি আর ইরফান খান...

ঢাকায় পা রেখে ঘুরেটুরে বেরিয়ে আর ভুনা গোস্ত খেয়ে জমিয়ে ঘুমোনোর পাত্র যে এই তারকা নন, সেটা আন্দাজ করতে পারেন নিশ্চয়ই! ইরফান বলছেন, 'আমি তো প্রথম থেকেই সকলকে বলেছি, এই ছবি নিয়ে আমি বিস্তারিত কথা বলব৷ কিন্ত্ত তার জন্য বেশ কিছুদিন শ্যুটিং করতে হবে আমায়৷ আমার মেইলবক্স খুলে দেখি বহু সাংবাদিক প্রশ্ন করছেন- তা হলে ঢাকা নিয়ে কিছু বলুন! কিন্ত্ত কী বলব৷ এয়ারপোর্ট থেকে সোজা হোটেল এসেছি৷ আর এখন ওয়ার্কশপ আর প্রস্ত্ততি নিয়ে ব্যস্ত৷' খবর নিয়ে জানা গেল ইরফান খান ইদানীং অরগ্যানিক খাবার খান৷ দেশি মুরগির ঝোল বা বাংলাদেশে যেমনভাবে অতিথি বাড়িতে এসে এক থালা ফল কেটে দেওয়া হয়, সেটা ভালোবেসে খেতে পারেন তারকা৷ ছবির পরিচালক মোস্তাফা সরয়ার ফারুকি বলছিলেন, 'ছবির ওয়ার্কশপে কী সাংঘাতিক খাটছি আমরা সেটা খোঁজ নিয়ে দেখলেন?' তারপর চোখের সামনে যেসব ছবি এল ওয়ার্কশপের সেখানে বিরতিতে মাঠে নেমে ক্রিকেট ব্যাট হাতে ছক্কা হাঁকাচ্ছেন ইরফান!

কেন 'ডুব' ছবির সহপ্রযোজক হতে রাজি হলেন? ইরফানের উত্তর, 'সেটা না হলে ছবিটা হত না৷' এই তারকার বউ বাঙালি৷ বাঙালি পরিচালকের সঙ্গে 'পিকু' সাড়াজাগানো৷ এবার বাংলা ছবিতে কাজ...ইরফান প্রশ্ন শুনে বলছেন, 'বেঙ্গলিস কিপ কামিং ইন মাই লাইফ'৷ এরপর যোগ করলেন মুচকি হাসি৷ ফারুকির ছবির প্রস্তাবে কী ভেবে 'হ্যাঁ' বললেন?

ঢাকার লে মেরিডিয়ান হোটেলে তখন ডিনারের পর একটা খোলা জায়গায় এসে দাঁড়িয়েছেন অভিনেতা (পড়ুন স্মোকিং জোন)৷ বলছেন, 'প্রস্তাবটা পাওয়ার পর আমি ফারুকির ছবি দেখা শুরু করলাম৷ একদিন আমি আর আমার বউ 'অ্যান্ট স্টোরি' দেখছিলাম৷ আমি হেসে গড়িয়ে পড়ে গেলাম৷ বউ বলল, 'তুমি তো বাংলা সেরকম একটা বোঝো না৷ তাও এত হাসছ'৷ মনে হলো ফারুকি বড় পর্দায় হিউম্যান ইমোশনস ফুটিয়ে তোলেন দারুণভাবে৷' ফারুকির একটি ছবির স্বত্ত্ব নিতে চান এই তারকা৷ ভবিষ্যতে ভেঙেচুরে আরও কিছু বানাবার ইচ্ছে রয়েছে৷ সেদিন আড্ডাতেই ইরফান বলছিলেন, 'আমি ভেবেছিলাম এবার যদি এখান থেকে সুন্দরবন ঘুরতে যেতে পারি৷ রাতে হাঁটব সুন্দরবনে৷ কিন্ত্ত এখন যা অবস্থা দেখছি, কে জানে যাওয়া হবে কিনা৷' পাশে দাঁড়িয়ে নায়িকা পার্নো (মিত্র) তখন ইরফানকে বোঝালেন, সুন্দরবনে যেতে হলে বছরের কোন সময় সবচেয়ে ভালো৷ আর বাংলা ছবি? ইরফান কি নিয়মিত বাংলা ছবি দেখেন? ইরফানের উত্তর, 'কিউ-এর ছবি দেখি৷ আদিত্য বিক্রম (সেনগুপ্ত)-এর ছবি দেখলাম৷ কিউ তো এখন অবশ্য আর কলকাতায় নেই৷

তবে এর বাইরে সম্প্রতি এমন কোনও কাজ নজরে পড়েনি, যা বাংলা ছবিকে বিশ্বদরবারে নিয়ে যেতে পারে...' কতটা বাংলা শিখছেন তিনি? ইরফান বলছিলেন, 'বাঙালিরা সংস্কৃত আর হিন্দি শব্দ নিয়ে তার থেকে নিজের মতো শব্দ তৈরি করেছেন৷ আমি যদি বলি 'মৃত্যু' (নিজস্ব উচ্চারণে), ওঁরা বলবে, না ওটা 'মৃত্যু' (বাংলা উচ্চারণে বলে দেখালেন)! চেষ্টা চালাচ্ছি...'

ফারুকি যেমন করে ভাবছেন...

'ডুব' ছবিতে প্রধান চরিত্র চার৷ সেখানে মধ্যমণি ইরফান খান৷ অন্য তিন চরিত্রে রোকেয়া প্রাচী, নুসরত ইমরোজ তিসা আর পার্নো মিত্র৷ ছবির অন্যতম প্রযোজক হিমাংশু ধনুকা বলছিলেন সেই মুহূর্তর কথা যখন ফারুকি ফোন করে তাঁকে বলেন, 'আপনাকে একটা গোপন কথা বলি৷ আমি ছবির গল্প শুনিয়েছি ইরফানকে আর ওঁর ভালো লেগেছে৷' এই ছবির থিম মৃত্যু৷ ছবি সোশ্যাল ড্রামা সেটা আঁচ করা যায়৷ কিন্ত্ত ছবিতে চরিত্ররা একে অন্যের সঙ্গে কী সম্পর্কে জড়িয়ে রয়েছেন, সে সম্পর্কে একবিন্দু কথা বের করা গেল না ফারুকির কাছ থেকে, বারংবার প্রশ্ন করেও৷ বরং তিনি বলছেন, 'আপনি আগে বলুন, আমাদের আতিথেয়তায় কোনও ত্রুটি নেই তো? বাংলাদেশ কিন্ত্ত আতিথেয়তায় কোনও ত্রুটি রাখে না'!

যখন ইরফানের নায়িকা পার্নো

বাংলাদেশে এই নায়িকাকে যে ছবি নিয়ে প্রশ্ন করলেন সেখানকার সাংবাদিকরা, সেটা 'মাছ, মিষ্টি অ্যান্ড মোর'৷ হ্যাঁ৷ বাংলাদেশে এই নায়িকার ছবি দর্শক দেখেন নিয়মিত৷ আর এবার নায়িকার জন্য বড় ব্রেক৷ নাহ৷ কোনও ব্লিঙ্ক অ্যান্ড মিস রোল নয়৷ হাত খুলে লেখার অনুমতি নেই৷ তাই শুধুমাত্র একটা ইশারা৷ পার্নো মিত্র এবার ইরফান খানের বিপরীতে৷ ইরফানের সঙ্গে ওয়ার্কশপ কীরকম হল? পার্নো বলছেন, 'চিত্রনাট্য পরলাম৷ একটা ফোটোশ্যুট হল একসঙ্গে, ছবির প্রয়োজনে৷ ইরফান মাঝেমাঝেই আমায় বলছেন, 'আরে তুমি এত কম কেন খাচ্ছো? আর বেশি বেশি খাও! (হাসি)' ইরফান খানের সঙ্গে নায়িকার আড্ডা চলছে নিয়মিত৷ সেইসব টুকরো আড্ডার অংশ না হয় তোলা থাক নায়িকার পরবর্তী সাক্ষাত্‍কারের জন্য...

ইরফান খান এই ছবির জন্য ডেট দিয়েছেন একটানা৷ পার্নো মিত্রও তাই৷ ইরফান বলছিলেন, 'মাঝে কোনও কিছুতে গেলেই কনসেনট্রেশনে ছেদ পড়ে৷ একেবারে সবকিছু শেষ করে যেতে চাই৷ এই ছবির জন্য আমি পরের কিছু কমিটমেন্টস কিছুটা পিছিয়েছি'৷ তাই আপাতত 'ডুব'-এ ডুবে থাকার পালা! অন্য সময়ের সৌজন্যে

 


মন্তব্য