kalerkantho


হ্যাকারদের অত্যাচারে তারকাদের যত হয়রানি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ মার্চ, ২০১৬ ১৫:৪৫



হ্যাকারদের অত্যাচারে তারকাদের যত হয়রানি

অনলাইনে গোপনীয়তা বিষয়ে ব্যাপক পেরেশানিতে ভুগতে হয়েছে তারকাদের। তা ছাড়া হ্যাকারদের যন্ত্রণায় সোশাল মিডিয়ায় তাদের অনলাইন অ্যাকাউন্টগুলো সব সময় নিরাপত্তাজনিত ঝুঁকিতে রয়েছে।

এখানে দেখে নিন, টুইটার অ্যাকাউন্টে বড় বড় সব তারকাদের কি অবস্থাই না করেছেন হ্যাকাররা।

১. ২০০৯ সালে পপ তারকা ব্রিটনি স্পিয়ার্সের টুইটার হ্যাক করলেন এক সাইবার ক্রিমিনাল। সেখানে ব্রিটনির পোস্ট হিসাবে লিখে দিলেন, আশা করছি যত দ্রুত সম্ভব পৃথিবীটা নতুন শাসনে চলবে। অথচ শয়তানের পূজারী নন তারকা। পাশাপাশি ব্রিটনির পেজের ব্যাকগ্রাউন্ডও বদলে দেন হ্যাকার। এমনকি সেখানে লিখে দেন, ব্রিটনি মারা গেছেন।

২. কেন্ডাল জেনারের অ্যাকাউন্ট হ্যাকড হয় ২০১৫ সালের এপ্রিলে। সেখানে হ্যাকার তার ফলোয়ারদের উদ্দেশ করে স্পর্শকাতর টুইট লিখে দেন। একবার লেখা হয়েছে তিনি রূপান্তরকামী হয়েছেন।

বিবারকে বলেন 'গোলাম'। আবার আরেকটি টুইটে বলা হয়, কেন্ডাল খাদ্য গ্রহণে ডিসঅর্ডারে ভুগছেন।

৩. তাইগার সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করেন ব্লাঙ্ক সাইনা। ২০১৪ সালের নভেম্বরে তার টুইটার হ্যাকড হলো এবং সেখানে সাইনা প্রেমিককে 'প্রতারক' বললেন। আরো লিখেছেন, আমি কখনোই তাইগাকে ভালোবাসিনি। এসব আসলে হ্যাকারদের কাণ্ড।

৪. এমনকি ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও ছাড় দেয়নি হ্যাকাররা। সেখানে লিল ওয়েনের একটি গানের কলি লিখে দেন হ্যাকাররা।

৫. ২০১১ সালের ডিসেম্বরে হ্যাকড হয় লেডি গাগার অ্যাকাউন্ট। সেখান থেকে আইপ্যাড এবং ম্যাকবুকের প্রমোশনে প্রচারণা চালানো হয়। কিন্তু ভক্তরা বুঝে ফেলেন এ কাহিনী।

৬. বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তি বারাক ওবামাও ছাড় পাননি। ২০১৩ সালে অক্টোবরে তার অ্যাকাউন্টে হ্যাকার আক্রমণ চালান। সেখানে একটি লিঙ্ক জুড়ে দেওয়া হয় যেখানে দেখানো হয়, ওবামা সিরিয়ার প্রেসিডেন্টের সমর্থক।

৭. ২০১৩ সালের মার্চে এরা স্টোন একই সমস্যায় পড়েন। সেখানে এমার হয়ে হ্যাকার লিখেছেন, অ্যান্ড্রু এবং শাইলিন একটি গাছে বসে রয়েছে। এই টুইটের মাধ্যমে স্টোন এবং তার প্রেমিক অ্যান্ড্রুর মধ্যকার বিচ্ছেদের ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

৮. ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে ঝামেলায় পড়েন টেইলর সুইফট। সেখানে এমন কিছু লিঙ্ক দেওয়া হয় যা হ্যাকারদের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টের সঙ্গে জুড়ে যায়। এ ছাড়া টেইলরের নগ্ন ছবি প্রকাশেরও হুমকি দেন হ্যাকাররা।

৯. ২০১৩ সালের মে মাসে পপ তারকা জাস্টিন বিবারের অ্যাকাউন্ট হ্যাকড হয়। সেখানে বলা হয়, বিবার একজন সমকামী।

১০. ২০১২ সালের জানুয়ারিতে সেলেনা গোমেজের অ্যাকাউন্টটিও হ্যাকড হয়ে গেল। পরে হ্যাকারের পরিচয়টাও ফাঁস হয়ে যায়। সেখানে সেলেনা তার প্রেমিক বিবারকে নিয়ে বাজে কথা বলছেন- এমন বক্তব্য তুল দেয় হ্যাকাররা।
সূত্র : এমএসএন

 


মন্তব্য