kalerkantho


দেশে প্রথমবারের মতো গীতিকারের ইউটিউব চ্যানেল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ মার্চ, ২০১৬ ১৪:৫৭



দেশে প্রথমবারের মতো গীতিকারের ইউটিউব চ্যানেল

শাফিন আহমেদের গাওয়া 'জাতীয় সঙ্গীতের দ্বিতীয় লাইন' কিংবা জেমসের গাওয়া 'আমি এক দুঃখওয়ালা' ও 'শততম দুঃখবার্ষিকী'.... এমনই বেশকিছু অত্যন্ত জনপ্রিয় কালজয়ী গানের প্রখ্যাত গীতিকার রনিম রহমান। ১৯৯৭ থেকে ২০০৭ সাল, মাত্র ১০ বছরে মাত্র ১০০র মতো গান লিখেছেন তিনি। তবে ব্যক্তিগত ব্যস্ততার কারণে কিছু বছর গান লেখা থেকে অবসর নিয়েছিলেন এই স্বনামধন্য গীতিকার। বর্তমানে গীতিকার রনিম তার লেখা ও সুর নিয়ে একটি ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবামের কাজে হাত দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

এই খবর পুরনো, নতুন খবর হলো, সম্প্রতি তার লেখা সবগুলো গানের একটি ইউটিউব সংকলন করেছেন রনিম রহমান। এ প্রসঙ্গে গীতিকার রনিম রহমান বলেন, দেশের সংগীত ইতিহাসের পাতায় বাংলাদেশে আমিই প্রথম গীতিকার...যার লেখা সবগুলো গান নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হয়েছে। দীর্ঘ কয়েক বছরের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফল হচ্ছে আমার নিজস্ব লেখা গানের ইউটিউব চ্যানেলের আত্মপ্রকাশ। অর্থাৎ সহজেই অনুমেয় যে, গীতিকার রনিমের আগে এই পর্যন্ত কোনো গীতিকারের নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল এখন পর্যন্ত নেই, যেখানে তারা নিজেদের লেখা সব গান আপলোড করেছেন।

উল্লেখ্য, এ দেশের অনেক জনপ্রিয় ব্যান্ডশিল্পী গীতিকার রনিমের লেখা গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। ব্যান্ড শিল্পীদের মধ্যে শাফিন আহমেদ (মাইলস), জেমস (নগর বাউল), হাসান (আর্ক), মাকসুদ (মাকসুদ ও ঢাকা),  বিপ্লব (প্রমিথিউস), পার্থ বড়ুয়া (সোলস), টিপু (অবসকিউর), আইয়ুব বাচ্চু (এলআরবি) ও মিজান (ওয়ারফেজ) উল্লেখযোগ্য। আধুনিক শিল্পীদের মধ্যে এন্ড্রু কিশোর, শাকিলা জাফর, আগুন, ডলি শায়ন্তনী, তিশমা, রমা, মিলা, পথিক নবী, রিপ্পি (প্রয়াত তরুণ শিল্পী), নাসির ও জুয়েল উল্লেখযোগ্য। তবে ফাহমিদা নবী ও ন্যান্সি পৃথকভাবে রনিমের লেখা দুটি থিম সং-এ কণ্ঠ দিয়েছিলেন।

এ ছাড়াও রনিম প্রিন্স মাহমুদ, মানাম আহমেদ, আরমান খান, রাজেশ, জুয়েল বাবু, শওকাত, ফুয়াদ ইবনে রাব্বী ও পঞ্চমদের সাথেও সংগীত নিয়ে কাজ করেছেন।

রনিম রহমানের ইউটিউব চ্যানেলে যেতে ক্লিক করুন এখানে

 


মন্তব্য