kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ । ৬ মাঘ ১৪২৩। ২০ রবিউস সানি ১৪৩৮।


সিঙ্গাপুরপ্রবাসীদের সাথে গান-গল্পে তানভীর তারেক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ মার্চ, ২০১৬ ১৭:১০



সিঙ্গাপুরপ্রবাসীদের সাথে গান-গল্পে তানভীর তারেক

সম্প্রতি প্রথমবারের মতো সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি প্রাক্তন মেধাবী ছাত্রদের বৃহৎ সংগঠন 'ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ সিঙ্গাপুর (ডিএমইএবিএস)' আয়োজন করে নবীনবরণ অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠানে এম এইচ জিকুর উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংঠনের সংগঠনের সভাপতি মো. জাকির হোসেন। বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি আবু ইউনুস, কোষাধ্যক্ষ তাহের সাগরসহ কার্যকরী কমিটির নেতৃবৃন্দ। এ ছাড়া অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিঙ্গাপুর-বাংলাদেশ সোসাইটির উপদেষ্টা সাহিদুজ্জামান টরিক।

গত ১৩ মার্চ অনুষ্ঠানের বড় একটি অংশ ছিল সংগীতানুষ্ঠান ও আলাপন। সংগীতানুষ্ঠানের গানগল্প পবের্র পুরো সময়জুড়ে গান পরিবেশন করেন প্রতিভাবান উপস্থাপক, সংগীত পরিচালক ও কণ্ঠশিল্পী তানভীর তারেক ও সিঙ্গাপুরে মিউজিকে অধ্যয়নরত ও কণ্ঠশিল্পী রুবেল। গানের ফাঁকে ফাঁকে বিভিন্ন সময়ের উল্লেখযোগ্য স্মৃতি তুলে ধরে তারা দর্শকদের মাতিয়ে তোলেন। অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ তানভীর তারেকের হাতে একটি স্মারক সম্মাননা তুলে দেন।

তানভীর তারেকের পরিবেশনায় ছিল 'তুমি কার', 'নীল মনিহার', 'আমি তোমাকেই বলে দেবা', 'বন্ধু', 'একলা সমুদ্দুর'সহ একাধিক গান। এ ছাড়া গানের মাঝে তানভীর তারেক এর লেখা ভ্রমণগদ্য 'উড়াল পাখির পাণ্ডুলিপি’র মোড়ক উন্মোচন করা হয়। বইটির সিঙ্গাপুরে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জন্য বিপণনের দায়িত্ব নেন সিঙ্গাপুর-বাংলাদেশ সোসাইটির কর্তাব্যক্তি সাহিদুজ্জামান টরিক।

ব্যতিক্রমী এই অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া প্রসঙ্গে তানভীর তারেক বলেন, ''আমার কাছে, এটি সত্যিই রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা ছিল। কারণ সিঙ্গাপুরের মতো ব্যস্ত শহরে আমার গানের পাশাপাশি আমার লেখা বইটি নিয়ে এ ধরণের আয়োজনের জন্য কৃতজ্ঞ আমি ডিএমইএবিএস এর কাছে। বিশেষ করে সিঙ্গাপুরে বাঙালি কমিউনিটির অধিকাংশ নেতৃস্থানীয়দের উপস্থিতিতে এমন আয়োজনে বাংলা গান আর কথার আসরটি ছিল সত্যিকার অর্থেই অনবদ্য। ''

সর্বশেষে কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেনের সমাপনী বক্তব্য ও নৈশভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।


মন্তব্য