দ্বন্দ্বে দ্বন্দ্বে 'কৃষ্ণপক্ষ'-330884 | বিনোদন | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


দ্বন্দ্বে দ্বন্দ্বে 'কৃষ্ণপক্ষ' অন্ধকারে?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ মার্চ, ২০১৬ ১৬:৪৭



দ্বন্দ্বে দ্বন্দ্বে 'কৃষ্ণপক্ষ' অন্ধকারে?

২৬ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে মুক্তি পায় নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের উপন্যাস 'কৃষ্ণপক্ষ' অবলম্বনে নির্মিত চলচ্চিত্র 'কৃষ্ণপক্ষ'। এতে অভিনয় করেছেন অভিনেতা রিয়াজ ও মাহিয়া মাহি। ছবিটি মুক্তির দিন থেকেই বিতর্ক শুরু হয়ে গেছে। মুক্তির দিন অভিনেত্রী মাহি গণমাধ্যমগুলোর নিকট নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। মূলত কম হলে ছবিটি মুক্তি দেওয়া নিয়েই বাঁধে বিতর্ক। শুরুতে সারা দেশের ১০০ সিনেমা হলে ছবিটি মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও মাত্র ১৬ হলে ছবিটি মুক্তি পায়।

জাজ মাল্টিমিডিয়া ছবিটি পরিবেশনার দায়িত্ব নেয়। সমস্যাটা মূলত এখানেই বলে মিডিয়াপাড়ায় গুঞ্জন চলছে। জাজের কর্ণধার আব্দুল আজিজের সাথে নায়িকা মাহির সম্পর্কের অবনতির কারণেই জাজ ছবিটি বেশি হলে প্রদর্শনের অন্তরায় হিসেবে কাজ করে। তবে এইসব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন জাজের কর্ণধার আজিজ। তিনি বলেন, এইসব কথা ভিত্তিহীন। তিনি নিজেও চেয়েছিলেন ছবিটি যাতে বেশি হলে মুক্তি পায়। তবে হল মালিকরা ছবিটি নিতে রাজি হয়নি। বর্তমানে যেসব হলে ছবিটি চলছে সেগুলো হল স্টার সিনেপ্লেক্স (বসুন্ধরা সিটি, ঢাকা), ব্লকবাস্টার সিনেমাস (যমুনা ফিউচার পার্ক, ঢাকা), বলাকা সিনেওয়ার্ল্ড (ঢাকা), শ্যামলী সিনেমা হল (ঢাকা), অভিসার সিনেমা হল (ঢাকা), বনলতা সিনেমা হল (ফরিদপুর), বিজিবি অডিটোরিয়াম (সিলেট), চন্দন সিনেমা হল (জয়দেবপুর), ছায়াবাণী সিনেমা হল (নাটোর), কল্লোল সিনেমা হল (মধুপুর), কেয়া সিনেমা হল (টাঙ্গাইল), মমতা সিনেমা হল (মাধবদী), রাজিয়া সিনেমা হল (নাগরপুর, টাঙ্গাইল), রুপকথা সিনেমা হল (পাবনা), সাগরিকা সিনেমা হল (চালা সিরাজগঞ্জ)।

গত ২৯ ফেব্রুয়ারি সোমবার রাজধানীর পূর্ণিমা সিনেমা হল থেকে নামিয়ে নেওয়া হয় কৃষ্ণপক্ষ ছবিটি। সিনেমা হল সূত্রে জানা যায়, কৃষ্ণপক্ষ ছবির গল্প ও এর নির্মাণ বেশ সুন্দর হলেও দর্শক ছবিটি দেখে মজা পাচ্ছে না। দর্শকদের সংখ্যাটাও কম। এদিকে বেশ কয়েকজন দর্শক পূর্ণিমায় ছবিটি দেখতে এসে না পেরে হতাশা জানিয়েছেন। অন্যদিকে চলচ্চিত্র পরিচালক হুমায়ুন আহমেদের কাছের মানুষ মাসুদ আখন্দ রাজধানীর একটি সিনেমা হলে সস্ত্রীক ছবিটি দেখতে গিয়ে হাউজফুলের কারণে টিকেট পাননি। ফরিদপুরের বনলতা সিনেমা হল এলাকায় স্থানীয় শিক্ষার্থী ও সাধারণ দর্শকদের ছবিটির বিষয়ে আগ্রহ দেখা যাচ্ছে।

এদিকে জাজের কাছের মানুষ বলে পরিচিত কাহিনীকার আব্দুল্লাহ জহির বাবু তার ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, হুমায়ূন আহমেদ বেঁচে থাকা অবস্থায় তাঁর নির্মিত ছবি কি কখনো ১৬ হলের বেশি মুক্তি পেয়েছে? তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় বাবুর যুক্তিকে দুর্বল আখ্যা দিয়ে অনেকেই লিখেছেন, হুমায়ূন আহমেদের ছবি কখনই ফ্লপ ছিল না। এ ছাড়াও এখানে নির্মাতা শাওন ছবিটিকে বাণিজ্যিক ঘরানার করেছেন যেটার কারণে দর্শক আরও বেশি গ্রহণ করবে ছবিটি।

মন্তব্য