kalerkantho

শর্টগান নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণার অভিযোগে

কালিয়াকৈরে নৌকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে আ’লীগ নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৯ ১৯:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কালিয়াকৈরে নৌকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে আ’লীগ নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাচনে নৌকার মাঝি রেজাউল করিম রাসেলের বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র ও শর্টগান নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণার অভিযোগে আজ সোমবার বিকেলে সফিপুর বাজারে তিন সহস্রাধিক আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ সভা করেছে।

সফিপুর বাজার এলাকায় পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্দুল ওয়াহাব মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মুরাদ কবীর, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিকদার মোশারফ হোসেন, মৌচাক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান সিকদার, যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাড, হাবিবুল্লাহ বেলালি, অ্যাড হারুন অর রশিদ, মোশারফ হোসেন জয়, রফিকুল ইসলাম তুষার, মফিজুর রহমান লিটন, দুলাল আহম্মদ, সানোয়ার হোসেন, চেয়ারম্যার রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, নৌকার মাঝি রেজাউল করিম রাসেল ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে ১৫-১৬ জন সন্ত্রাসী নিয়ে গতকাল রবিবার রাতে উপজেলার আন্দারমানিক গ্রামে ঢুকে কয়েকটি অবৈধ পিস্তল ও তার ব্যবহৃত একটি শর্টগান প্রদর্শন করে আনারস প্রতীকের কয়েকজন কর্মীকে গুলি করার জন্য ধাওয় দেয়। এ সময় আনারস প্রার্থীর কর্মীরা দৌড়ে প্রাণ ভয়ে পালিয়ে আত্মরক্ষা করে। খবর পেয়ে আনারস প্রার্থী কামাল উদ্দিন সিকদারসহ তার নেতাকর্মীরা ওই গ্রামে গেলে রেজাউল করিম রাসেল তার সমর্থকদের নিয়ে দ্রুত এলাকা থেকে চলে যান।

ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রবিবার রাত থেকেই এলাকায় চরম উত্তেজনা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। খবর পেয়ে রাতেই কালিয়াকৈর থানার ওসি সানোয়ার হোসেন ও সকালে গাজীপুরের সার্কেল এএসপি সাহিদুল ইসলামসহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় জেলা প্রশাক গাজীপুর, পুলিশ সুপার গাজীপুর, উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা, অফিসার ইনচার্জ কালিয়াকৈর বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এর আগে সোমবার দুপুরে উপজেলা তৃণমূল আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. কামাল উদ্দিন (আনারস) এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে মো. কামাল উদ্দিন সিকদার বলেন, আনারস প্রতীকের কর্মীদের উপর হামলা, তাদের অফিস ভাঙচুর ও ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার সফিপুর আন্দারমানিক এলাকায় আমার আনারস প্রতীকে প্রচার-প্রচারণা চলাকালে আমার কর্মী ও সমর্থনকারীদের নৌকার প্রার্থী রেজাউল করিম রাসেলসহ তার কর্মীরা অস্ত্রসস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়েছে।

এ সময় দৌড়ে কোনোরকমে আমার কর্মী ও সমর্থককারীরা তাদের জীবন রক্ষা করে। পরে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে নৌকার প্রার্থী রাসেল তার লোকজন নিয়ে সেখান থেকে চলে যায়। মো. কামাল উদ্দিন সিকদারের অভিযোগ, ওই প্রার্থী প্রতিদিন ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে ৬-৭টি মাইক্রোবাস নিয়ে ৩০-৪০ জনের একটি দল অবৈধ অস্ত্র নিয়ে এ উপজেলায় এসে আনারস প্রতীকের কর্মীর বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। তিনি ওই সব মাইক্রোবাসে তল্লাসী ও উপজেলার সকল বৈধ অস্ত্র জমা নেওয়া ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য সংশিষ্ট পুলিশ প্রশাসনের প্রতি দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুরাদ কবির, কালিয়াকৈর পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও বীর মুক্তিযুদ্ধা আব্দুল ওহাব মিয়াসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা।

মন্তব্য