kalerkantho

জানা-অজানা

বেদ

দশম শ্রেণির বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা বইয়ে বেদের কথা উল্লেখ আছে

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



বেদ

সনাতন ধর্মের প্রাচীনতম গ্রন্থ ‘বেদ’। বেদ মানে হলো ‘জ্ঞান’। বেদকে শ্রুতি সাহিত্যও বলা হয়। কারণ গ্রন্থ আকারে লিপিবদ্ধ হওয়ার আগে বেদের কথাগুলো গুরু-শিষ্য পরম্পরা শ্রুতি হিসেবে সংরক্ষিত ছিল। অর্থাৎ গুরুর কাছ থেকে তার শিষ্য শুনেছে, এর পর তার কাছ থেকে আরেকজন শুনেছে, এভাবে। বেদের রচনার সময়কাল নিয়ে অনেক ধরনের তথ্য আছে। কারো কারো মতে, খ্রিস্টপূর্ব ২৫০০ থেকে ৯০০ অব্দের মধ্যে বেদ লিপিবদ্ধ হয়। বেদের মন্ত্রগুলো ‘বৈদিক মন্ত্র’ নামে পরিচিত। এগুলো ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পাঠ করা হয়। সনাতনরা বেদকে অলৌকিক এবং নিরাকার নির্গুণ ঈশ্বর-সম্বন্ধীয় মনে করেন। বেদের সংখ্যা চারটি—ঋগ্বেদ, যজুর্বেদ, সামবেদ ও অথর্ববেদ।

♦ হাবিব তারেক



মন্তব্য