kalerkantho

জেএসসি প্রস্তুতি
সৃজনশীল প্রশ্ন

বিজ্ঞান

সুনির্মল চন্দ্র বসু, সহকারী অধ্যাপক, সরকারি মুজিব কলেজ, সখীপুর, টাঙ্গাইল

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



 বিজ্ঞান

পরমাণু মৌলিক পদার্থের ক্ষুদ্রতম কণা। পরমাণু ইলেকট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন দ্বারা গঠিত

ষষ্ঠ অধ্যায়

পরমাণুর গঠন

১। চিত্র দুটি লক্ষ করো এবং সংশ্লিষ্ট প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

ক) পরমাণু কী?          ১

খ) পরমাণুর সব ভর নিউক্লিয়াসে কেন? ব্যাখ্যা করো।       ২

গ) উদ্দীপকের ১ নম্বর পরমাণুটি কোন ধরনের আধান তৈরি করে? ব্যাখ্যা করো।          ৩

ঘ) উদ্দীপকের ২ নম্বর পরমাণুটি লিথিয়ামের সঙ্গে যৌগ গঠন করবে কি না বিশ্লেষণ করো।    ৪

উত্তর : ক) পরমাণু মৌলিক পদার্থের ক্ষুদ্রতম কণা। পরমাণু ইলেকট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন দ্বারা গঠিত।

খ) পরমাণুর কেন্দ্রে নিউক্লিয়াস থাকে। পরমাণুর নিউক্লিয়াসে প্রোটন ও নিউট্রন থাকে। প্রোটন সংখ্যা ও নিউট্রন সংখ্যার সমষ্টিকে ভরসংখ্যা বলে।

সোডিয়াম পরমাণুর নিউক্লিয়াসে ১১টি প্রোটন ও ১২টি নিউট্রন থাকে। এদের সমষ্টি হলো ১১+১২=২৩, যা পরমাণুটির ভরসংখ্যা। তাই পরমাণুর সব ভর নিউক্লিয়াসে থাকে।

গ) উদ্দীপকের ১ নম্বর পরমাণুতে ১১টি ইলেকট্রন আছে।

সুতরাং মৌলটি হলো সোডিয়াম (Na)।

সোডিয়ামের ইলেকট্রনবিন্যাস = ২, ৮, ১

সোডিয়াম পরমাণুর সর্বশেষ শক্তিস্তরে ১টি ইলেকট্রন থাকে। সর্বশেষ শক্তিস্তরে ১টি ইলেকট্রন থাকায় সোডিয়াম পরমাণুটি স্থিতিশীল নয়। সোডিয়াম পরমাণু ১টি ইলেকট্রন ত্যাগ করে ক্যাটায়নে পরিণত হয়েছে। অর্থাৎ সোডিয়াম পরমাণু স্থিতিশীলতা অর্জন করছে।

Na Na++ e-

ঘ) উদ্দীপকের ২  নম্বর পরমাণুতে ৯টি ইলেকট্রন আছে।

সুতরাং ২ নম্বর মৌলটি হলো ফ্লোরিন (F)।

ফ্লোরিন পরমাণুর প্রথম কক্ষপথে ২টি ও দ্বিতীয় কক্ষপথে ৭টি ইলেকট্রন আছে।

ফ্লোরিন পরমাণুর ইলেকট্রনবিন্যাস = ২, ৭

ফ্লোরিন পরমাণুর সর্বশেষ কক্ষপথে ৭টি ইলেকট্রন থাকে। সর্বশেষ কক্ষপথে ৭টি ইলেকট্রন থাকায় ফ্লোরিন পরমাণুটি স্থিতিশীল নয়। ফ্লোরিন পরমাণু ১টি ইলেকট্রন গ্রহণ করে অ্যানায়নে পরিণত হয়েছে। অর্থাৎ ফ্লোরিন পরমাণু স্থিতিশীলতা অর্জন করছে।

F+e- F-

লিথিয়াম পরমাণুতে ৩টি ইলেকট্রন আছে।

লিথিয়াম পরমাণুর প্রথম কক্ষপথে ২টি ও দ্বিতীয় কক্ষপথে ১টি ইলেকট্রন আছে।

লিথিয়াম পরমাণুর ইলেকট্রনবিন্যাস = ২, ১

লিথিয়াম পরমাণুর সর্বশেষ কক্ষপথে ১টি ইলেকট্রন থাকে। সর্বশেষ কক্ষপথে ১টি ইলেকট্রন থাকায় লিথিয়াম পরমাণুটি স্থিতিশীল নয়। লিথিয়াম পরমাণু ১টি ইলেকট্রন ত্যাগ করে ক্যাটায়নে পরিণত হয়েছে। অর্থাৎ লিথিয়াম পরমাণু স্থিতিশীলতা অর্জন করছে।

Li Li++ e-

উদ্দীপকের ২ নম্বর পরমাণু (F)-এর সঙ্গে লিথিয়াম (খর) যে যৌগ গঠন করে তা নিচে দেওয়া হলো

      Li Li++e-

    F+e- F-

Li+F Li+F- ev LiF

লিথিয়াম ও ফ্লোরিন আয়নিক যৌগ লিথিয়াম ফ্লোরাইড (LiF) গঠন করে।

২। চিত্রগুলো লক্ষ করো এবং সংশ্লিষ্ট প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

ক) সংকেত কাকে বলে?           ১

খ) কার্বনের আইসোটোপ তিনটি কেন? ব্যাখ্যা করো।        ২

গ) B মৌলটির নিউট্রন সংখ্যা ১৫ হলে এর ভরসংখ্যা নির্ণয় করো।         ৩

ঘ) A মৌলের সঙ্গে ঈ মৌলের যৌগ গঠন প্রক্রিয়া বিশ্লেষণ করো।         ৪

উত্তর ক) কোনো মৌল বা যৌগের অণুর সংক্ষিপ্ত রূপকে সংকেত বলে।

খ) কোনো মৌলের ভিন্ন ধরনের পরমাণু, যাদের প্রোটন বা পারমাণবিক সংখ্যা সমান কিন্তু ভরসংখ্যা ভিন্ন, তাদের ওই মৌলের আইসোটোপ বলে।

কার্বনের বেশির ভাগ পরমাণুতে ৬টি প্রোটন ও ৬টি নিউট্রন রয়েছে। আবার কিছু পরমাণুতে ৭টি বা ৮টি নিউট্রন থাকে। সে ক্ষেত্রে তাদের ভরসংখ্যা ১৩ বা ১৪। পারমাণবিক সংখ্যা একই কিন্তু ভরসংখ্যা ভিন্ন হওয়ায় কার্বনের এই তিন ধরনের আইসোটোপ দেখা যায়।

গ) B মৌলের নিউট্রন সংখ্যা ১৫

B মৌলের ইলেকট্রন সংখ্যা ১৩

B মৌলের প্রোটন সংখ্যা ১৩

আমরা জানি,

কোনো মৌলের ভরসংখ্যা = প্রোটন সংখ্যা + নিউট্রন সংখ্যা

            = ১৩+১৫

            = ২৮

ঘ)

A মৌলের ইলেকট্রন সংখ্যা ১১

সুতরাং A মৌলটি হলো সোডিয়াম (Na)

সোডিয়ামের ইলেকট্রনবিন্যাস ঘধ(১১) = ২, ৮, ১

সোডিয়াম পরমাণুর সর্বশেষ শক্তিস্তরে ১টি ইলেকট্রন থাকে। সর্বশেষ শক্তিস্তরে ১টি ইলেকট্রন থাকায় সোডিয়াম পরমাণুটি স্থিতিশীল নয়। সোডিয়াম পরমাণু ১টি ইলেকট্রন ত্যাগ করে ক্যাটায়নে পরিণত হয়েছে। তাই সোডিয়াম পরমাণু স্থিতিশীলতা অর্জন করছে।

Na Na++e-

C মৌলের ইলেকট্রন সংখ্যা ১৭

C মৌলটি হলো ক্লোরিন (Cl)

ক্লোরিন পরমাণুর সর্বশেষ শক্তিস্তরে ৭টি ইলেকট্রন থাকায় ক্লোরিন পরমাণু স্থিতিশীল নয়। ক্লোরিন পরমাণু ১টি ইলেকট্রন গ্রহণ করে অ্যানায়নে পরিণত হয়েছে। তাই ক্লোরিন পরমাণু স্থিতিশীলতা অর্জন করছে।

Cl+e Cl-     

অ মৌলের সঙ্গে প মৌলের যৌগ গঠন নিম্নরূপ

   Na Na++e-

Cl+e Cl-

Na+cl Na+cl- ev Nacl



মন্তব্য