kalerkantho


বিশ্বসাহিত্য

পেন পিন্টার পুরস্কার পেলেন লংলে

৭ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০



পেন পিন্টার পুরস্কার পেলেন লংলে

নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের লেখক মাইকেল লংলে পেলেন এ বছরের পেন পিন্টার প্রাইজ। তাঁর রচনায় মানুষের দুর্দশা বিশেষ গুরুত্ব পায় বলে লংলেকে স্বদেশি নোবেলজয়ী কবি সিমাস হিনি অভিহিত করেন ‘শোক ও বিস্ময়ের জিম্মাদার’ হিসেবে।

লংলে ব্রিটিশ নাট্যকার হ্যারল্ড পিন্টারের শুধু ভক্তই ছিলেন না যুবা বয়সে তিনি পিন্টারের দ্বারা ব্যাপক প্রভাবিতও হয়েছেন। হ্যারল্ড পিন্টারের নামে প্রতিবছর এ পুরস্কার দেওয়া হয় ব্রিটিশ, আইরিশ বা কমনওয়েলথভুক্ত দেশের লেখকদের। ১৯৩৯ সালে বেলফাস্টে জন্ম নেওয়া লংলে পড়াশোনা করেছেন ডাবলিনের ট্রিনিটি কলেজে। বর্তমানের সঙ্গে ধ্রুপদি সাহিত্যের তুলনার ক্ষেত্রে নিজস্ব স্বকীয়তার জন্য তিনি বিশেষভাবে আলোচিত। নর্দান আয়ারল্যান্ডের রাজনৈতিক সমস্যাসহ বিশ্বে ২০ শতকের ভয়াবহ নৃশংসতাগুলো তাঁর রচনায় উঠে এসেছে। লংলে এর আগে টি এস এলিয়ট প্রাইজ, হাওথর্নডেন প্রাইজ, আইরিশ টাইমস পোয়েট্রি প্রাইজ, হুইটব্রেড প্রাইজসহ অনেক পুরস্কার পান। ডাব্লিউ বি ইয়েটস ও অ্যাডওয়ার্ড টমাসের রচনার সঙ্গে তাঁর রচনার তুলনা করা হয়ে থাকে। লংলে নিজেও স্বীকার করেন যে এই দুই লেখক তাঁকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করেছেন। ‘গোর্স ফায়ারস’, ‘দ্য ওয়েদার ইন জাপান’, ‘অ্যা হানড্রেড ডোরস’, ‘দ্য স্টেয়ারওয়েল’ ইত্যাদি তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ। আগামী ১০ অক্টোবর ব্রিটিশ লাইব্রেরিতে এক অনুষ্ঠানে লংলের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে।  

 

রিয়াজ মিলটন


মন্তব্য