kalerkantho


বেদনা-কাতর চোখ

মোশাররফ হোসেন ভূঞা

৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রাজশাহী স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে নির্বাক থমকে

আছে আজ বেদনায় ভারাক্রান্ত বিনোদনবাহী

সমস্ত চলন্ত ট্রেন। প্ল্যাটফর্মে অপেক্ষমাণ

শুধু তুমি আর আমি। সকালের রোদেলা রঙের

পা দুখানা দেখে দেখে অবয়বে রূপের রোদ্দুর—

একটানা কতবার যে ঝলসে উঠেছে জানি না।

চোখে চোখ পড়া মাত্র হয়ে যাই গ্রিসের হোমার

দুটি চোখ ভরে দেখা হলো আপাদমস্তক!

 

এ হৃদয়ে সারা দেহ এঁকে যাই মনের তুলিতে

দুটি চোখে সমুদ্রের গভীরতা, পূর্ণিমা চাঁদের

মতো মুখ, শ্রাবণের মেঘমালা লজ্জায় লুকিয়ে

থাকা কৃষ্ণ চুলের পুষ্পিত খোঁপা, স্নিগ্ধস্নাত দীর্ঘ—

দুটি হাত পরশ দেওয়ার মতো—ক্ষতার্ত হৃদয়ে

তার ছবি এঁকে এঁকে অবশেষে ক্লান্ত হয়ে পড়ি।

 

হৃিপণ্ড স্তব্ধকর যন্ত্রধ্বনি থেমে থেমে বাজে

রমণীর বিবসনা পিঠে হাসে বাসন্তী আকাশ

হিরন্ময় তরঙ্গ দোলায়—দোলে নিতম্ব যুগল

বেদনা-কাতর দুটি চোখে নীলকষ্ট শিখা জ্বলে।


মন্তব্য