kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


স্মরণ

সতীনাথ ভাদুড়ী

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সতীনাথ ভাদুড়ী

সতীনাথ ভাদুড়ীর জন্ম ২৭ সেপ্টেম্বর ১৯০৬ সালে তত্কালীন বিহারের পূর্ণিয়ার ভাট্টাবাজারে। পিতা ইন্দুভূষণের আদিবাড়ি নদীয়ার কৃষ্ণনগরে।

মাতা রাজবালা দেবী। সতীনাথের স্কুলজীবন শুরু পূর্ণিয়া জেলা স্কুলে। এরপর পাটনা সায়েন্স কলেজ ও পাটনা আইন কলেজে। কর্মজীবন শুরু পিতার সহকর্মীরূপে পূর্ণিয়া কোর্টে ওকালতি করে। এ সময় নানাবিধ সমাজসেবামূলক কাজেও জড়িয়ে পড়েন তিনি। সাহিত্যচর্চা শুরু এই সময়েই। বাড়ি বাড়ি বই সংগ্রহ করে পূর্ণিয়া গ্রন্থাগার স্থাপনে ভূমিকা গ্রহণ করেন। পাশাপাশি তাঁর রাজনৈতিক জীবনেরও সূচনা ঘটে।   ‘চিত্রগুপ্ত’ তাঁর ছদ্মনাম। তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থাবলি—জাগরী (১৯৪৫), চিত্রগুপ্তের ফাইল (১৯৪৯), ঢোঁড়াই চরিতমানস (১৯৪৯); গল্পগ্রন্থ—গণনায়ক (১৯৪৮), সত্যি ভ্রমণ কাহিনী (১৯৫১), অচিন রাগিণী (১৯৫৪), অপরিচিতা (১৯৫৪), সংকট (১৯৫৭), আলোক দৃষ্টি (১৯৬৪), চকাচকি (১৯৫৬), পত্রলেখার বাবা (১৯৫৯), জলভ্রমি (১৯৬২), দিকভ্রান্ত (১৯৬৬)। জাগরী উপন্যাসের জন্য পান প্রথম ‘রবীন্দ্র পুরস্কার’ (১৯৫০)। ৩০ মার্চ ১৯৬৫ মারা যান প্রথিতযশা এ সাহিত্যিক।


মন্তব্য