kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বই আলোচনা

সাক্ষাৎ-কথায় আট কবি ও লেখক

ইলিয়াছ কামাল রিসাত

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সাক্ষাৎ-কথায় আট কবি ও লেখক

আলাপন অষ্টমী : পিয়াস মজিদ। প্রচ্ছদ : তৌহিন হাসান। প্রচ্ছদে ব্যবহৃত লেখকদের আলোকচিত্র : নাসির আলী মামুন। প্রকাশক : জাগৃতি প্রকাশনী। মূল্য : ১৬০ টাকা

কবি-সাহিত্যিকদের মনোভূমি তো অনুভূতির তীর্থস্থান। এই তীর্থস্থানে পাঠক আলো-বাতাস আস্বাদনে আসেন।

তাহলে কবি-সাহিত্যিকদের মনোভূমির প্রকৃত হদিস কোথায় পেতে পারি?—অবশ্যই কবি-লেখকদের লেখা কবিতা কিংবা গল্প, প্রবন্ধে। কিন্তু মনোযোগী বা অমনোযোগী পাঠকমাত্রই জানেন যে লেখকের লেখায় কিন্তু আমরা নিজেদের ব্যাখ্যাই দাঁড় করাই, নিজের মতো করে বয়ান করি। এতে করে একই সাহিত্যের নানা রকম পাঠ সারা বিশ্বে বিস্তৃত হতে থাকে।

পিয়াস মজিদ গৃহীত সাক্ষাত্কার-সংকলনগ্রন্থ আলাপন অষ্টমী নিয়ে লিখতে গিয়েই পাঠক-লেখকের মধ্যকার মিথস্ক্রিয়ার কথা উল্লেখ করলাম প্রথমে। বইয়ের নামেই স্পষ্ট হয়ে আছে এতে আটজনের সাক্ষাত্কার আছে। চিরাচরিত সাক্ষাত্কারগুলোর মতো এ বইয়ে শুধু আলতো প্রশ্নই করেননি; বরং নির্দিষ্ট সাহিত্যিকের মনের গভীরে গমনের চেষ্টা লক্ষ্য করি।  

প্রখ্যাত প্রাবন্ধিক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীকে সাহিত্য, রাজনীতি, দর্শনের আন্তসম্পর্কের কথা ব্যক্ত করতে বলা হলে তিনি বলেন :

রাজনৈতিক নয়, আমি একে দার্শনিক দৃষ্টিভঙ্গি বলি। এর মাধ্যমে রাজনীতি, অর্থনীতি, সংস্কৃতি সব কিছুই ব্যাখ্যা করা সম্ভব। এটা ছাড়া মহৎ সাহিত্য হয় না। সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের কাছে  কবি পিয়াস যখন জানতে চাইলেন ‘কবিতার নেপথ্য-প্রেরণার’ কথা, তখন সৈয়দ হকের স্বাভাবিক অবিহ্বল জবাব : প্রেরণা নিজের দৃষ্টির ভেতর। অনবরত দেখছি।

গ্রন্থটিতে পিয়াস মজিদ শুধু লেখালেখির অন্তর্জগৎ নিয়ে অনুসন্ধানেই ব্যস্ত থাকেননি, বরং বাংলাদেশ রাষ্ট্রের মৌলিক ভিত্তি নিয়েও জানতে চেয়েছেন লেখকদের কাছ থেকে। শাহবাগ-২০১৩-এর প্রসঙ্গ আসতেই হাসান আজিজুল হক বিস্তৃত করে ব্যাখ্যা করেছেন যে শাহবাগ চেতনায় বাংলাদেশ রাষ্ট্রের মৌল বিষয়—মুক্তিযুদ্ধ, অসাম্প্রদায়িকতা, ধর্মনিরপেক্ষতা ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে।  

আবদুল মান্নান সৈয়দের যে সাক্ষাত্কার এই বইয়ে আছে, তা সাম্প্রতিককালে প্রকাশিত সাক্ষাত্কার নামার জন্য একটি আদর্শ উদাহরণ হতে পারে। সাক্ষাত্কারে স্পষ্ট হয়ে ওঠে যে এক কবি আরেক কবিকে কত গভীর অভিনিবেশের সঙ্গে অধ্যয়ন করতে পারেন। বেলাল চৌধুরী, হরিপদ দত্ত ও সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের সাক্ষাত্কার এ গ্রন্থে উল্লেখযোগ্য দ্যোতনা যোগ করেছে।  

সাহিত্যের অনেক জরুরি বিষয় এবং কবি-লেখকদের অন্তর্মহল আবিষ্কারের প্রচেষ্টায় আমাদের সাহিত্য-পরিসরে সাক্ষাত্কারবিষয়ক সংকলন গ্রন্থের তালিকায় পিয়াস মজিদের আলাপন অষ্টমী বইটি নিঃসন্দেহে পাঠকের কাছে তাত্পর্যবহ হয়ে উঠবে।


মন্তব্য