kalerkantho


প্রেম বা জ্যামিতির কবিতা

কামরুল হাসান

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



শহর এক আশ্চর্য জ্যামিতি,

ত্রিভুজ সম্পর্ক গোলাকার পার্কে ঝরে পড়ে।

ঘন হয়ে উঠেছে ওই দালান ধ্রুপদ

ধূর্তের তীব্র সুতীব্র পিরামিড

ব্যাসার্ধ ছাড়িয়ে বাড়ে শহর প্রাচীর।

 

গোলাকার বল হাতে বালকেরা চলেছে সব

আয়তাকার মাঠ লক্ষ্য করে

                ঝাঁপায় কাঁপায় ওদের সন্ত্রাস

বালখিল্য চতুষ্কোণ ঘিরে বিপুল উল্লাসধ্বনি

ত্রিভুজের বিষম বাহুর শেষে সন্নিহিত কোণে।

 

আনুভূমিক ওই সরল পথখানি ধরে

পরিবর্তনশীল রাশির মতো গাড়ি ছুটে যায়

অভিলম্ব ধরে গেলে নীলাদের বাড়ি

চাঁদখানি ঝুলে আছে ত্রিমাত্রিক ভরে।

 

সকালে আমি (৪,৮), নীলা ছিল (৬, ৩)-এ

বিকেলে ক্যাফেতে দুজনেই (৫, ৫)

স্থানাঙ্কের নিয়ম মেনে কফিতে দিই চুমুক

নীলা চলে গেলে সকল স্থানাঙ্কের মূল্য হয় (০, ০)।

 

নীলাদের পাশের বাড়ির ছাদ তৃতীয় অক্ষ z

আমি যে মাঠে অস্থির হাঁটি তার দুই বাহু x ও y

দুই মাত্রা থেকে নির্ণিমেষ তাকিয়ে থাকি

তৃতীয় মাত্রার দিকে, নীলা আজ ছাদে ওঠে কি না!

 

দারুণ এক ঘনকের ঘরে আমাদের আনন্দমেলা

নিখুঁত গোলকের বাঁকা পিঠে ক্লান্তিহীন খেলা!


মন্তব্য