kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বিদেশি সাংবাদিকের প্রতি

নাসির আহমেদ

২৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভিয়েতনামে তুমি হয়তো দেখেছ অগ্নিগোলা, যুদ্ধ-রিপোর্টিং

করতে গিয়ে দেখেছ বোমায় বিধ্বস্ত লোকালয়। হয়তো দেখেছ

গৃহযুদ্ধে জ্বলন্ত অশান্ত স্পেন টিভির পর্দায়

কিংবা বেতারের রণাঙ্গন-রিপোর্টে সূক্ষ্ম বিবরণ শুনে থাকতে পারো।

 

সেই তুমি অসম যুদ্ধের এমন ভয়াবহ নৃশংসতার ছবি

কখনো দেখেছ? গণহত্যা ঘটেছে মাইলাইসহ বহু শহর-নগরে

জালিয়ানওয়ালাবাগেও, কিন্তু পঁচিশ মার্চের ঢাকা

এমন লাশের শহর! এই পৃথিবী দেখেনি জগন্নাথ হল আর

ইকবাল হলের মতো এমন বধ্যভূমি!

তুমি তবে এই ছবি  নিয়ে যাও, বিশ্বকে দেখাও।

 

এমন অপূর্ব রূপসী নিসর্গ-চিত্র যেন কোথাও নেই

তেমনি নেই কোথাও এমন সর্বনাশা ধ্বংসযজ্ঞের ইতিহাস।

হে বিদেশি! তুমি এলে দেখবে এখনো ধ্বংসের চিহ্ন সর্বত্রই

অগণিত কঙ্কালে কঙ্কালে গোটা দেশটাই বধ্যভূমি!

 

মুক্তিসংগ্রামের ইতিহাসে বিশ্বখ্যাত বহু নেতা বটে, শুধু ব্যতিক্রম একজন

হ্যামিলনের বংশীবাদকের চেয়ে তীব্র আকর্ষণময় সুর

অপূর্ব অনন্য সুর তার বজ্রকণ্ঠে বেজেছে এই দুঃখিনী বাংলায়

ঐন্দ্রজালিক সেই সুরে মুগ্ধ সাড়ে সাত কোটি যোদ্ধা এমন নির্ভীক

তীব্র স্বপ্নের নেশায় যুদ্ধের আগুনমুখো তারা। ঝলসায় ব্যতিক্রমী

মুক্তির রৌদ্র হয়ে অসংখ্য রক্তাক্ত লাশ, জ্বলন্ত বঙ্গ জনপদে।

 

সারা দেশে সর্বত্র—এমন যুদ্ধের ছবি, এমন নেতার ছবি এই পৃথিবীতে

বিরল হে পর্যটক! তুমি তাঁর একখানি চিত্র তুলে নাও

তোমার কৌতূহলী ক্যামেরায়। বাংলাদেশ আর

সেই নাম এখন অভিন্ন এক সত্তা: মুজিবের বুক

যেন স্বাধীন পতাকা স্বদেশের।


মন্তব্য