kalerkantho


অবাক পৃথিবী

ভাষার টানে

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



ভাষার টানে

ইংরেজি থেকে পর্তুগিজ, জাপানিজ থেকে স্প্যানিশ, চার-পাঁচটি বা দশটি হলেও কথা ছিল। কিন্তু গুনে গুনে ৫৬টি ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারেন বসনিয়া হারজেগোভিনার মুহাম্মাদ মেফিদ। বোঝেন ৭০টি।

মেফিদের বয়স যখন পাঁচ বছর, পরিবারের সঙ্গে গ্রিসে বেড়াতে গিয়ে প্রতিবেশীদের কথা শুনেই ধরে ফেললেন তারা কী বলছে। বছর ঘুরতেই পারদর্শী হয়ে যান গ্রিক ভাষায়।

বয়স ৯ বছর হতেই বসনিয়ায় শুরু হয় গৃহযুদ্ধ। সেখানকার সুইডিশ ক্যাম্পের এক সেনার কাছ থেকে শিখে ফেলেন সুইডিশ। বিষয়টি অস্বাভাবিক বুঝতে পেরে মেফিদকে ডাক্তারও দেখানো হয়। ডাক্তার বললেন, ছেলে অ্যাসপারাগাস সিনড্রোমে আক্রান্ত। এ কারণে দ্রুত অন্য ভাষা শিখতে পারে।

গৃহযুদ্ধ শেষে হাঙ্গেরি বেড়াতে যান মেফিদ। রাজনৈতিক কারণে দাদির অনুরোধ ছিল, সে যাতে অন্তত হাঙ্গেরিয়ান ভাষা না শেখে। তবে ভাষার টানে সেই অনুরোধও রাখা সম্ভব হয়নি। এই আগ্রহ এমন যে রেডিওতে এক ইহুদি নেতার ভাষণ শুনেই ঠিক করলেন হিব্রুও শিখবেন। বন্ধুদের সহায়তায় পেয়ে যান হিব্রু গানের ক্যাসেট। গান আর ভিডিও দেখেই শেখেন কঠিন ভাষাটি। একদিন আরেক বন্ধু জানাল লাটভিয়ান শিখলে মেফিদকে বাণিজ্যিক সফরে নিয়ে যাবে। এরপর ইউটিউব, দুটি বই আর ৪৩টা কার্টুন দেখে মাত্র দুই সপ্তাহে বাল্টিক ভাষায় পারদর্শী হয়ে যান মেফিদ।

৩২ বছর বয়সী মেফিদের ভাষাযাত্রা এখনো অব্যাহত। বছরের অন্তত ২০০ দিন কাটে ভ্রমণে। এই ফাঁকে লাতিন আমেরিকার সেন্ট্রাল আন্দিজ পর্বতমালার আদিবাসীদের কেচোয়া ভাষাও আয়ত্ত করছেন। মেফিদ মনে করেন, ভাষা হলো জ্ঞান আর জ্ঞানেই আনন্দ। একটা ভাষার মৃত্যু মানে জ্ঞানের মৃত্যু। —নাঈম সিনহা



মন্তব্য