kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আপনার প্রশ্ন বিশেষজ্ঞের উত্তর

ডেন্টালবিষয়ক বাছাই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগের প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. শহিদুর রহমান লিমন

৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আপনার প্রশ্ন বিশেষজ্ঞের উত্তর

আমার বয়স ৩৮ বছর। ১০ বছর আগে আমি মাড়ির একটি দাঁতে ফিলিং করিয়েছিলাম।

কিন্তু কোনো ক্যাপ করাইনি। এত বছর ভালোই ছিলাম। পাঁচ মাস ধরে আমার ফিলিং করা দাঁতের ভেতর খুব ব্যথা করে। মাঝে মাঝে দাঁতে শক্ত কিছু চাপ দিয়ে ধরে রাখি, তাতে ব্যথা কম লাগে। আবার মাঝে মাঝে দাঁতের গোড়া দিয়ে রক্ত বের হয়, ফুলে থাকে। এই যন্ত্রণার কারণে মাথাব্যথাও করে। কী করলে আমার ফিলিং করা দাঁতের ব্যথা থেকে মুক্ত হব?

মাহিয়া চৌধুরী, সদর, সুনামগঞ্জ।

আপনার দাঁতে ফিলিংয়ের ভেতরে দন্তক্ষয় বা সেকেন্ডারি ক্যারিজ হয়েছে অথবা ধাতব পদার্থের ফিলিংয়ের কারণে পাল্পাইটিস বা দন্তমজ্জা প্রদাহ হয়েছে। প্রথমত, একটি এক্সরে করে দেখতে হবে দাঁতের অভ্যন্তরের পাল্প বা মজ্জা আক্রান্ত হয়েছে কি না। যেহেতু মাড়ি ফুলে যায়, তাই মনে হচ্ছে দাঁতের মজ্জা নষ্ট হয়ে গেছে। এক্সরে করলে বোঝা যাবে দাঁতের গোড়ায় কোনো ইনফেকশন হয়েছে কি না। যদি পাল্পাইটিস বা ইনফেকশন হয়, তাহলে রুট ক্যানেল চিকিৎসা করে ক্যাপ বা ক্রাউন করে নিলে আপনার সমস্যা আর থাকবে না বলে আশা করছি। আপনি একজন ডেন্টাল সার্জনের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

 

আমার বয়স ২৩ বছর। আমার সমস্যা হলো মুখ থেকে খুব দুর্গন্ধ বের হয়। কারো সামনে কথা বলতে পারি না। সবাই নাক কুঁচকে থাকে। আমি চা খাই না, ধূমপান করি না, পান-সুপারি, চকোলেট, চুইংগামও খাই না। দুইবেলা দাঁত ব্রাশ করি। এর পরও মুখের দুর্গন্ধ যায় না। কী করলে এ থেকে রেহাই পাব? উল্লেখ্য মাঝে মাঝে ব্রাশ করলে মাড়ি থেকে রক্ত ঝরে।

রায়হান উদ্দিন চরফ্যাশন, ভোলা।

আপনি সম্ভবত জিনজিভাইটিস বা মাড়ির প্রদাহ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। আগে এ রোগকে বলা হতো পাইওরিয়া। এ রোগের চিকিৎসা হচ্ছে স্কেলিং করানো। অনেক সময় কিছু ওষুধও সেবন করতে হয়। তবে মাড়ির কারণ ছাড়া অন্য কারণেও মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে—এমনকি যাদের গ্যাসের বা এসিডিটির সমস্যা আছে, সাইনাসে বা গলায় ইনফেকশন আছে তাদেরও মুখ থেকে দুর্গন্ধ বের হতে পারে। আবার দাঁত ব্রাশ করলেও যে সব সময় আমরা তা ভালোভাবে পরিষ্কার করতে পারি তা নয়। প্রতি দেড় থেকে দুই মাস অন্তর ব্রাশ পাল্টাবেন। ভালো মানের ব্রাশ ও টুথপেস্ট

ব্যবহার করবেন। আপাতত দুই সপ্তাহ মাউথওয়াশ ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

 

আমার বয়স ৩২ বছর। চার বছর আগে দাঁতের স্কেলিং করিয়েছিলাম। এখন আবার করাতে চাই। কিন্তু অনেকেই বলছে যে দাঁতে স্কেলিং করানো ভালো না। এতে দাঁত ফাঁকা হয়ে যায় এবং গোড়া ও এনামেলের ক্ষতি হয়। আসলেই স্কেলিং করানো ভালো না খারাপ। আর যদি ভালো হয় তবে এটা কত দিন পর পর করানো উচিত?

সোহেল রানা, সোনাইমুড়ী, নোয়াখালী।

স্কেলিং করলে দাঁত নড়ে যায় অথবা ফাঁকা হয়ে যায়—এ ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। স্কেলিংয়ের মাধ্যমে শুধু দাঁত ও মাড়ির মধ্যে পাথর (খাদ্যকণা দীর্ঘদিন জমে শক্ত অবস্থা) সরানো হয়ে থাকে। বর্তমানে আল্ট্রাসনিক স্কেলার মেশিনের সাহায্যে দাঁতে কোনো প্রকার চাপ না দিয়েই পাথর সরানো হয়ে থাকে, যার ফলে দাঁত নড়বড়ে বা ফাঁকা হওয়ার আশঙ্কা থাকে না।   প্রতি ছয় মাস পর পর স্কেলিং করা ভালো। সেটা না পারলে অন্তত বছরে একবার করানো উচিত। স্কেলার মেশিন দিয়ে পরিষ্কার না করলে ও হাতুড়ে ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা করালে ক্ষতি হতে পারে। স্কেলিং হোক আর অন্য কোনো চিকিৎসা তা অবশ্যই পাস করা ডেন্টাল সার্জনের মাধ্যমে করাবেন।

 

আমার বয়স ২৬ বছর। আমার সামনের ওপরের দুটি দাঁতে হলুদ দাগ হয়ে আছে আজ প্রায় পাঁচ বছর হলো। প্রথম দিকে হালকা ছিল, কিন্তু বর্তমানে অনেক গাঢ় হলুদ দাগ হয়ে আছে। কী করলে এ দাগ থেকে মুক্ত হব?

সোমা আক্তার, কাজীপুর, সিরাজগঞ্জ

আপনার দাঁত দুটিতে কোনো রকম আঘাত পেয়েছিলেন কি না তা জানা দরকার ছিল। যদি পেয়ে থাকেন তবে এক্সরে করে দাঁতের শিকড়ের গোড়ায় ইনফেকশন আছে কি না, তা নির্ণয় করতে হবে। ইনফেকশনের কারণে দাঁত দুটি বিবর্ণ হলে রুট ক্যানেল চিকিৎসা অথবা এপিসেকটমি অপারেশন করে ইনফেকশন দূর করতে হবে। পরবর্তী সময় পাশের দাঁতের সঙ্গে রং মিলিয়ে দাঁত দুটি ক্যাপ (ক্রাউন) করে নিতে হবে। এ জন্য একজন ডেন্টাল সার্জনের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।


মন্তব্য