kalerkantho


ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ

১২ দিনেও খোঁজ মেলেনি সেই পাঁচজনের, উদ্বিগ্ন স্বজনরা অপেক্ষায়

নিজস্ব প্রতিবেদক    

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৫:০৭



১২ দিনেও খোঁজ মেলেনি সেই পাঁচজনের, উদ্বিগ্ন স্বজনরা অপেক্ষায়

গত ১২ দিনেও রাজধানীতে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া সেই পাঁচজনের খোঁজ মেলেনি। পরিবারের দাবি অনুযায়ী, গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্তও তারা নিখোঁজ ছিল। তাদের ভাগ্যে কি ঘটেছে তা জানতে না পেরে চরম উদ্বিগ্ন স্বজনরা। তারা অপেক্ষার প্রহর গুনছেন। তাদের খোঁজ পেতে বিরামহীনভাবে ছুটাছুটি করছেন। কখনো থানায় আবার ডিবি অফিসে, এমনকি হাসপাতাল, মর্গ ও আদালতেও ঘুরাঘুরি করছেন। কিন্তু কোথাও তাদের সন্ধ্যান মিলছে না। 

নিখোঁজ পাঁচজন হলেন, দুই সহোদর শফিউল আলম ও মনিরুল আলম, তাদের বন্ধু আবুল হায়াত এবং মোশারফ হোসেন মায়েজ ও শফিউল্লাহ। এদের মধ্যে শাফিউল আলম, মনিরুল ইসলাম ও তাদের বন্ধু আবুল হায়াতকে গত ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টার দিকে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে ডিবি পরিচয়ে প্রথমে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর সেই রাতেই এই তিনজনকে সঙ্গে নিয়ে ডিবির লোকজন যাত্রাবাড়ীতে একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী শফিউল্লাহ ও একটি মাদরাসার শিক্ষার্থী মোশারফ হোসাইন মায়েজকেও তুলে নিয়ে যায়। তারপর থেকে এই পাঁচজনের আর কোনো খোঁজ মিলছে না। তুলে নিয়ে যাওয়ার পরদিন থেকে নিখোঁজদের সন্ধানে স্বজনরা থানায়, ডিবি কার্যালয়ে গেলেও সেখানকার কেউ স্বীকার করছে না। এমনকি থানা পুলিশ এই নিয়ে কোন জিডি বা মামলাও নিচ্ছে না বলে পরিবারের লোকজন অভিযোগ করছেন।

এদের মধ্যে দুই সহদরের বড় ভাই রাকিবুল আলম গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ দেখতে দেখতে ১২ দিন হয়ে গেল। ভাইদের খোঁজ পেলাম না। তারা কোথায় আছে, তাও জানতে পারছেন না। তারা গোয়েন্দা পুলিশের কাছে আছে এই খবরটা জানতে পারলেও আন্তত মনকে স্বান্তনা দেওয়া যেত। এখনও আমরা চরম অন্ধকারের মধ্যে আছি।’

রাকিবুল বলেন, দুই ভাইয়ের খোঁজ জানার জন্য বৃদ্ধ বাবা-মা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। রাত দিন তারা কান্নাকাটি করছেন। এমন পরিস্থিতি হয়েছে যে, ‘ এখন বাবা মাকেও বাঁচানো কঠিন হয়ে পড়েছে।’

নিখোঁজ আবুল হায়াত, মোশারফ হোসেন মায়েজ ও শফিউল্লাহর পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেও একই ধরনের তথ্য পাওয়া গেছে। তাদের  বৃদ্ধ বাবা মাসহ পরিবারের লোকজন এই নিয়ে চরম উদ্গ্নি। তারাও অপেক্ষায় আছেন নিখোঁজদের জন্য। 

পরিবারের লোকজন মনে করছেন, নিখোঁজ পাঁচজনকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কোন একটি টিম ধরে নিয়ে গেছে। বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তারা এমনটা ধারণা করছেন। তবে ডিবির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাদের কাছ থেকে এ বিষয়ে গতকাল শনিবার পর্যন্ত কোনো তথ্য মেলেনি। তবে তাদেরকে কি অপরাধে ধরা হয়েছে তারা ধারনা করতে পারছেন না। এ বিষয়ে জানতে চাইলে দুই সহদরের ভাই রাকিবুল আলম বলেন, শফিউল আলম ও মনিরুল আলমের বিরুদ্ধে থানায় কোন মামলা নেই। এমনকে তারা কোন খারাপ কর্মকাণ্ডের সঙ্গেও জড়িত ছিল না। তাহলে কেন তাদের ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়া হয় তাদের জানা নেই। ঠিক একই রকম দাবি করেছেন অন্য তিন জনের পরিবারের লোকজনের পরিবার। 



মন্তব্য