kalerkantho


মনিকাকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীকে পাশে চায় পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ২৩:০১



মনিকাকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীকে পাশে চায় পরিবার

'আমার মনিকার বয়স ১৯ বছর। মনিকার বাবা হিসেবে আমার একটা স্বপ্ন ছিল সে লেখাপড়া শিখে মানুষের মত মানুষ হবে। দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করবে। আরো ১০টা মেয়ের মতো এক সময়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসবে। কিন্তু সেই স্বপ্ন ভেঙে খানখান হয়ে গেল। ২০১৬ সালের বছরের নভেম্বর মাসে মনিকার সহপাঠীরা যখন এইচএসসি ফাইনাল পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয় তখন তাঁর স্থান হলো মহাখালী ক্যান্সার হাসপাতালের বিছানায়।'

গতকাল শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে 'মেধাবী ছাত্রী মনিকাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন' ব্যানারে এক মানববন্দনে মনিকার বাবা খুলনার জেলার দিঘলিয়া উপজেলার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী শেখ মনিরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। এসব মানববন্দনে মনিকার ভাই-বোনসহ এলাকার অর্ধশত মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

মনিকার বাবা শেখ মনিরুল ইসলাম বলেন, মরণঘাতক ব্লাড ক্যান্সার এ আক্রান্ত হলো মনিকা। একটানা ৬ মাস তার শরীরে কেমোথেরাপি দেওয়া হলে সে কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠে। এরপর হাসপাতাল থেকে বাড়ি নিয়ে আসি। বাড়িতে আনার পর পুনরায় মনিকা তাঁর পড়াশুনায় মনোযোগী হয়। কিন্তু গত বছরের ২১ নভেম্বর আবারও সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। মনিকার চিকিৎসার দরকার হলো এ্যালোজেনিক বোনম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট যা আমাদের দেশে এখনো চালু হয়নি। বিদেশে এই চিকিৎসার ব্যয় প্রায় এক কোটি টাকা। আমি একজন ক্যান্টিন ব্যবসায়ী হয়ে মেয়ের জন্য এ পর্যন্ত প্রায় ৩০ লাখ টাকা খরচ করেছি। বর্তমানে বাড়ি ভিটা ছাড়া আর আমার কিছু নেই।'

তিনি বলেন, আমি এ পর্যায়ে সমাজের বিত্তবাদের এগিয়ে আসার আহবান জানাই। এ ছাড়া ১৬ কোটি মানুষের অভিভাবক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি একটু সদয় হোন তাহলে আমাদের মেয়েটি বেঁচে যায়। আমাদের মেয়েকে বাঁচাতে যারা সাহায্য করতে চান তারা সঞ্চয়ী হিসাব নং-১২০১৫১১৩৩১৩, ডাচ বাংলা ব্যাংক, খুলনা শাখা, খুলনা। বিকাশ নম্বর ০১৭১১-৪৫০১৯৫।



মন্তব্য