kalerkantho


মেয়েটি কেন ব্যাগে ছুরি রাখতো, আঘাত করলো কেন?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ১০:৩৮



মেয়েটি কেন ব্যাগে ছুরি রাখতো, আঘাত করলো কেন?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় এক তরুণকে কুপিয়ে আহত করে এক তরুণী। বিষয়টি টক অফ দ্য সোশ্যাল মিডিয়া হয়ে যায়। অর্থাৎ বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে আলোচনা হতে থাকে। কেউ কেউ ওই তরুণের একাধিক প্রেমিকা আছে মন্তব্য করে লেখেন, 'একটি গার্লফ্রেন্ডের বেশি নয়...।' নেহায়েত এটা মজা করার জন্য হলেও আদতে তা মজার বিষয় নয়।

একাধিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়াটা এখন খুবই কমন দৃশ্য হয়ে পড়ছে। কিন্তু ওই তরুণ-তরুণীর ক্ষেত্রে কি সেটা ছিল? আবার আঘাত করার পরেও মেয়েটি পালিয়ে যায়নি, বরং অপেক্ষা করেছে কখন পুলিশ আসবে। এটাও ভেবে দেখার বিষয়। বুধবার রাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার ফুলার রোডে।

মেয়েটির নাম লাভলি আক্তার। তিনি ইডেন কলেজের ছাত্রী। ছুরিকাঘাতে তরুণের আহত নাম আলামিন হোসেন। আহত আলামিন হোসেনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এই ঘটনায় লাভলি আকতারকে গ্রেপ্তার করে শাহবাগ থানা হেফাজতে রাখে পুলিশ।

 শাহবাগ থানার ওসি আবুল হোসেন প্রাথমিকভাবে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,প্রেমের সম্পর্কে কলহের জের ধরে লাভলি আকতার আলামিন হোসেনকে ছুরিকাঘাত করেন। লাভলি ইডেন কলেজে অর্নাসের ছাত্রী। তার গ্রামের বাড়ি ঝিনাইদহ।

শাহবাগ থানার আরেকটি সূত্র জানায়, কলহের কারণে মেয়েটি পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই ব্যাগে থাকা ছুরি দিয়ে কুপিয়ে আলামিনকে আহত করে। আলামিন চকবাজার এলাকায় প্লাস্টিকের ব্যাবসায়ী বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

পরেরদিন সকালে ওসি আবুল হাসান কালের কণ্ঠকে বলেন, মেয়েটিকে আমরা সারারাত জিজ্ঞেস করেছি। মেয়েটি একটিই উত্তর দিয়েছে আর তা হলো ছেলেটির সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু সেটা ভেঙে যায়। এর কিছুদিন পর থেকেই মেয়েটিকে ফের বিরক্ত করা শুরু করে আল আমিন। যার ফলে মেয়েটি একসময় অতি মাত্রায় বিরক্ত হয়ে ছুরি দিয়ে আঘাত করে।

ওসি জানান, আল আমিনের ভাই বাদী হয়ে মামলা করায় আমরা মেয়েটিকে কারাগারে পাঠিয়েছি।    

জানা গেছে, আলামিনকে কুপিয়ে লাভলি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেনি, বরং চুপচাপ দাঁড়িয়ে পুলিশের জন্য অপেক্ষা করছিল। একাধিক সূত্র জানিয়েছে আলামিন একাধিক প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে বলে প্রমাণ পায় লাভলি। এজন্যই সে তাকে কুপিয়েছে। তবে আরেকটি সূত্র বলছে,  দীর্ঘ দিন ধরে আলামিন তাকে উত্ত্যক্ত করে আসছিলো।

এখন প্রশ্ন হলো মেয়েটি নিজের কাছে কেন ছুরি রেখেছিল? আর কেনইবা পালিয়ে যায়নি। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা বলছেন, মেয়েটির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পরেও বিরক্ত করতো। সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবেও অনেকে বলছেন ছেলেটি একাধিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। পরে ফের লাভলিকে বিরক্ত করা শুরু করে। মাত্রাতিরিক্ত বিরক্তের কারণেই ও নিজের নিরাপত্তার কথা ভেবেই লাভলি ব্যাগে ছুরি রাখতে শুরু করেন।



মন্তব্য