kalerkantho

কেমিক্যাল নিয়ে র‌্যাব-ব্যবসায়ী মতবিনিময়সভা

ঢাকা যেন টাইমবোমায় পরিণত না হয় : র‌্যাব ডিজি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকা যেন টাইমবোমায় পরিণত না হয় : র‌্যাব ডিজি

বকশীবাজারে কারা কনভেনশন হলে গতকাল পুরান ঢাকা থেকে রাসায়নিকের কারখানা ও গুদাম অপসারণে গঠিত টাস্কফোর্সের মতবিনিময়সভায় র‌্যাবের মহাপরিচালকসহ অতিথিরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘কেমিক্যালের কারণে পুরান ঢাকা একসময় রূপ নিয়েছিল টাইমবোমায়। এ কারণে পর পর দুটি বড় দুর্ঘটনা ঘটল। সরকার চাচ্ছে এ এলাকায় আর দাহ্য পদার্থের ব্যবসা না হোক। তাই এ এলাকা থেকে কেমিক্যাল সরানোর উদ্যোগ নিয়েছে টাস্কফোর্স। তবে অভিযোগ পাচ্ছি, এ এলাকা থেকে কেমিক্যাল সরিয়ে কেউ কেউ তা নিজের ও আত্মীয়ের বাসায় রাখছে। তাই পুরান ঢাকাকে সেফ করতে গিয়ে দাহ্য পদার্থ ছড়িয়ে পুরো ঢাকা যেন টাইমবোমায় পরিণত না করি।’ গতকাল শনিবার পুরান ঢাকার বকশীবাজার কারা কনভেনশন হলে আয়োজিত এক মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ।

পুরান ঢাকার আবাসিক এলাকা থেকে কেমিক্যাল, প্লাস্টিক ও অন্যান্য দাহ্য পদার্থের কারখানা এবং গোডাউন অপসারণের লক্ষ্যে এ বিশেষ মতবিনিময়সভার আয়োজন করে র‌্যাব-১০। এ সময় মতবিনিময়সভায় উপস্থিত পুরান ঢাকার কেমিক্যাল ব্যবসায়ী ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা তাঁদের অভিযোগ, অনুযোগ ও সমস্যার কথা তুলে ধরেন। তাঁরা পুরান ঢাকায় কেমিক্যাল কারখানা রাখার পক্ষেই মত দেন।

ব্যবসায়ীদের সব কথা শোনার পর র‌্যাব ডিজি বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘একসময় এই পুরান ঢাকা ছিল ঐতিহ্যের পার্ট। এখনো পুরান ঢাকা হতে পারে বিশ্বের সেরা ঐতিহ্যের নগরী। পুরান ঢাকায় মজুদ রেখে ব্যবসা হয় এমন ৩৫টি আইটেমের কেমিক্যালকে শনাক্ত করা হয়েছে। যেগুলো দাহ্য পদার্থ হিসেবে সরানোর কথা বলেছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের প্রতি আমাদের আস্থা রাখতে হবে। তবে সমস্যা দুই দিক থেকেই, রাখার জায়গা না থাকলে আপনারা কেমিক্যাল নিয়ে কোথায় যাবেন। কিন্তু এটা রাখতে গিয়ে যদি সারা ঢাকা শহর টাইমবোমায় পরিণত হয়, সেটা করা যাবে না। ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে র‌্যাব ডিজি আরো বলেন, ব্যবসায়ীদের বিপদে ফেলা আমাদের কাজ না। আপনারা চাইলে ব্যবসার নিরাপদ জোন করা সম্ভব।’

র‌্যাব-১০-এর পরিচালক ও টাস্কফোর্স উপকমিটি-৪-এর আহ্বায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মো. কাইয়ুমুজ্জামান খানের সভাপতিত্বে মতবিনিময়সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন টাস্কফোর্স সদরের প্রতিনিধি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, ডিএমপি লালবাগ বিভাগের ডিসি মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা।

 

 

মন্তব্য