kalerkantho

উত্তর-পূর্বে বিজেপিতে বড়সড় ধাক্কা

টিকিট না পেয়ে দল ছাড়লেন ২৫ নেতা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টিকিট না পেয়ে দল ছাড়লেন ২৫ নেতা

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের আর মাত্র তিন সপ্তাহ বাকি। এরই মধ্যে জমে উঠেছে প্রচার-প্রচারণা। একই সঙ্গে জমে উঠেছে পুরনো দল ছাড়া, নতুন দলে যোগদান এবং জোট ভাঙা-গড়ার নাটকও। সেই নাটকের একটি অঙ্ক গতকাল মঞ্চস্থ হয়ে গেল উত্তর-পূর্ব ভারতে। এ দফায় সংগঠন হিসেবে উত্তর-পূর্বে বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হলো কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি। মনোনয়ন না পাওয়ায় গতকাল অরুণাচল প্রদেশে বিজেপি ছেড়ে গেছেন দলের অন্তত ১৮ জন শীর্ষ নেতা। এই ১৮ জন নেতার মধ্যে আছেন অরুণাচলে দলের সাধারণ সম্পাদক জারপুন গাম্বিন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুমার ওয়াই এবং পর্যটনমন্ত্রী  জারকার গ্যামলিন।

লোকসভা নির্বাচনের পাশাপাশি আগামী মাসে অরুণাচল ও সিকিমে বিধানসভার নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়ন না পেয়ে বিজেপি থেকে পদত্যাগ করেছেন এই দুই রাজ্যের আরো ছয় বিধায়ক। দল ছেড়ে বিদ্রোহী বিজেপি নেতারা যোগ দিয়েছেন মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমার ন্যাশনাল পিপলস পার্টিতে (এনপিপি); যারা বিজেপি শরিক হওয়া সত্ত্বেও এবার ‘একলা চলো’ নীতিতেই এই ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদের নিয়ে গত কয়েক দিনে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ২৫ নেতা বিজেপি ছাড়লেন।

অরুণাচলে ছয় বিধায়ক, তিন মন্ত্রী ছাড়াও বিজেপি থেকে বের হয়ে গেছেন দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতা এবং সাবেক মন্ত্রী  শেরিং জুরমে। বিজেপি ছেড়ে আসা নেতা-মন্ত্রী-বিধায়কদের যোগদানের পর এনপিপি নেতা টমাস সাংমা জানিয়েছেন, ‘৬০ সদস্যের বিধানসভায় আমরা অন্তত ৪০টি আসনে প্রার্থী দেব। ভোটে জিতলে আমরা একাই সরকার গঠনের চেষ্টা করব।’

দলত্যাগী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুমার ওয়াই অরুণাচল বিজেপির বিরুদ্ধে পরিবারতন্ত্র ও স্বজনপোষণের অভিযোগ এনেছেন। তিনি বলেন, ‘বিজেপি ঠিক পথে থাকলে আমরা দল ছাড়তাম না। শীর্ষ নেতৃত্ব সব সময় বলে দেশ এবং পার্টি ব্যক্তির আগে। কিন্তু বাস্তবে ঠিক তার উল্টোটা হয়। কংগ্রেসের বিরুদ্ধে পরিবারতন্ত্রের অভিযোগ তোলে বিজেপি। কিন্তু অরুণাচলে মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের লোকরাই তিনটি আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।’

দলে এই বিদ্রোহের খবর সামনে আসার পর বিজেপি নেতা কিরেন রিজিজু জানিয়েছেন, ‘কে মনোনয়ন পাবেন, তা দলের অভ্যন্তরীণ বিষয়। রাজ্য নির্বাচন কমিটির সুপারিশ পাওয়ার পর কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটি চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেছে। অনেক নেতা-মন্ত্রী-বিধায়ককেই টিকিট দেওয়া হয়নি। স্থানীয় পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

অরুণাচলে দলের ৫৪টি আসনে প্রার্থীর নাম গত রবিবারেই প্রকাশ করেছে বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বিজেপির দলত্যাগী বিধায়ক ও মন্ত্রীদের পেয়ে যাওয়ার পর খুব তাড়াতাড়ি প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করবে এনপিপি-ও। ভারতের সাধারণ নির্বাচনের মাত্র তিন সপ্তাহ আগে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মোট ২৫ জন নেতা দল ছাড়ায় বিপত্তিতে পড়েছে বিজেপি। সূত্র : এনডিটিভি, পিটিআই।

 

মন্তব্য