kalerkantho


ভুয়া এনকাউন্টার

ভারতে মেজর জেনারেলসহ ৭ সেনার যাবজ্জীবন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



ভুয়া এনকাউন্টারের ঘটনায় এক মেজর জেনারেলসহ সামরিক বাহিনীর সাত সদস্যকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন ভারতের একটি সামরিক আদালত। ২৪ বছর আগে আসাম রাজ্যে ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসামের (উলফা) সদস্য সন্দেহে ভুয়া ওই এনকাউন্টারে অল আসাম স্টুডেন্টস ইউনিয়নের (এএএসইউ) পাঁচ যুবককে সেনাশিবিরে ধরে নিয়ে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছেন—মেজর জেনারেল এ কে লাল, কর্নেল টমাস ম্যাথু, কর্নেল আর এস সিবিরেন, ক্যাপ্টেন দিলীপ সিং, ক্যাপ্টেন জাগদেও সিং, নায়েক আলবিন্দর সিং ও নায়েক শিবেন্দর সিং। আদালত তাঁদের অবিলম্বে চাকরি থেকে বরখাস্ত করারও নির্দেশ দিয়েছেন।

১৯৯৪ সালে আসামের তিনসুকিয়া জেলায় ওই এনকাউন্টারের ঘটনা ঘটে। ওই বছর ১৮ ফেব্রুয়ারি তিনসুকিয়া জেলায় ওই সাত সেনা সন্দেহের বশে ৯ জনকে আটক করেন। তাঁরা দাবি করেন, আটক ব্যক্তিরা উলফার সদস্য। তারা এলাকার চা বাগানের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা খুনের ঘটনায় জড়িত। কয়েক দিন পর পাঁচজনকে ভুয়া এনকাউন্টারে হত্যা করেন ওই সাত সেনা। বাকি চারজনকে পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। ওই ঘটনার পর ২২ ফেব্রুয়ারি আসামের সাবেক মন্ত্রী ও বিজেপি দলীয় নেতা জগদীশ ভূঁইয়া সামরিক বাহিনীর এসব সদস্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আটকদের স্থানীয় থানায় পেশ করতে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। নির্দেশমতো ঢোল্লা থানায় পাঁচজনের মৃতদেহ পেশ করে সেনাবাহিনী।

চলতি বছরের ১৬ জুলাই সামরিক আদালতে ওই ঘটনার বিচার শুরু হয় এবং ২৭ জুলাই বিচার শেষ হয়। শনিবার বিচারের রায় ঘোষিত হয় বলে রবিবার জানিয়েছে ভারতীয় সেনবাহিনীর কয়েকটি সূত্র।

সূত্র : পিটিআই।



মন্তব্য