kalerkantho


মালদ্বীপে সুপ্রিম কোর্টের শুনানি নিয়ে উত্তেজনা

ক্ষমতায় থেকে যেতে নির্বাচন বাতিল চান প্রেসিডেন্ট ইয়ামিন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



মালদ্বীপে গত ২৩ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচন বাতিলের আবেদনের ওপর সুপ্রিম কোর্টের শুনানিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা বিরাজ করছে। নির্বাচনের ফল চ্যালেঞ্জ করে পরাজিত প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের আবেদনের ওপর গতকাল রবিবার বিকেলে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। আজ সোমবার সকালে ফের শুনানির সময় তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর না করলে মালদ্বীপের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের কড়া নিষেধাজ্ঞা আরোপের সতর্ক বার্তা এবং মামলাটি প্রত্যাহারের জন্য বিরোধী জোটের আহ্বানের মধ্যেই সর্বোচ্চ আদালতে গতকাল এই শুনানি অনুষ্ঠিত হলো। নির্বাচনে জয়ী মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টির (এমডিপি) নেতৃত্বাধীন বিরোধী জোটের নেতা নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সোলিহর কাছে আগামী ১৭ নভেম্বর ক্ষমতা হস্তান্তরের কথা বিদায়ী প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের।

নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সোলিহর অভিনন্দন জানালেও পরের সপ্তাহেই পরাজিত প্রার্থী প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন ক্ষমতায় থেকে যাওয়ার উপায় খোঁজা শুরু করেন। তিনি তাঁর বিশ্বস্ত পুলিশ অফিসারদের ডেকে নিয়ে নির্বাচনে বিরোধী দলের পক্ষে কারচুপি করা হয়েছে মর্মে গোয়েন্দা প্রতিবেদন সংগ্রহের নির্দেশ দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত সপ্তাহে তিনি সুপ্রিম কোর্টে ২৩ সেপ্টেম্বরের নির্বাচন বাতিলের আবেদন জানান। এ অবস্থায় গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর এক বিবৃতিতে জানায়, মালদ্বীপে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর না হলে ‘উপযুক্ত ব্যবস্থা’ নেবে ট্রাম্প প্রশাসন। বিরোধী দল এমডিপিও বলছে, এটি ‘অপ্রমাণিত একটি মামলা।’ এ নিয়ে রাজনৈতিক দল ও কূটনীতিকদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে মালদ্বীপে।

এই অবস্থায় গতকাল সুপ্রিম কোর্টের শুনানিতে প্রেসিডেন্ট ইয়ামিনের আইনজীবীরা নির্বাচনে অনিয়ম হয়েছে মর্মে কাগজপত্র দাখিল করেন। প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে আইনজীবীরা ব্যালট পেপারের সিল মুছে ফেলার অভিযোগ আনেন। এ সময় নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারা কাগজপত্র দাখিল করে এবং নির্বাচনে কোনো অনিয়মের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছে, এটা অকল্পনীয় বিষয়।

সূত্র : মালদ্বীপ ইনডিপেনডেন্ট।

 

 



মন্তব্য