kalerkantho


সামরিক সচিবের বাসভবনে থাকবেন ইমরান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



সামরিক সচিবের বাসভবনে থাকবেন ইমরান

পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে থাকবেন না। তিনি গতকাল সোমবার জানিয়েছেন, সামরিক সচিবের তিন বেডরুমের বাড়িতে থাকবেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর জাতির উদ্দেশে দেওয়া প্রথম ভাষণে নিজের ও দেশের ব্যয় কমানোর ঘোষণা দেন ইমরান। তিনি বলেন, ‘আমি বানিগালায় নিজের বাড়িতে থাকতে চেয়েছিলাম। কিন্তু নিরাপত্তা সংস্থাগুলো আমার জীবন হুমকির মুখে বলে জানিয়েছিল। সে কারণে আমি এখানে থাকতে যাচ্ছি।’ ইমরান আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে কর্মীর সংখ্যা ৫২৪ এবং সেখানে গাড়ি রয়েছে ৮০টি। প্রধানমন্ত্রী অর্থাৎ আমার জন্য সেখানে বুলেটপ্রুফ গাড়ি রয়েছে ৩৩টি। পাশাপাশি সেখানে হেলিকপ্টার এবং বিমান রয়েছে। আমাদের অনেক সরকারি বাড়ি রয়েছে এবং সেগুলো যথেষ্ট বিলাসবহুল। একদিকে আমাদের নাগরিকদের জন্য ব্যয় করার পর্যাপ্ত অর্থ নেই, অন্যদিকে আমাদের দেশে এমন একটা দল রয়েছে যারা আমাদের ঔপনিবেশিক প্রভুদের মতো জীবন যাপন করে।’

নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা কেমনভাবে বাস করি তার দিকে লক্ষ করুন। প্রধানমন্ত্রীরা বিদেশে গেলে কিভাবে অর্থ ব্যয় করে তা লক্ষ করুন। এসব মানুষ ৬৫০ মিলিয়ন রুপি কোথায় ব্যয় করে। স্পিকারের জন্য বরাদ্দকৃত ১৬০ মিলিয়ন রুপি কোথায় ব্যয় হয়? তারা কি বিদেশে ভূমি জয়ের জন্য যায়?’

কিভাবে ব্যয় কমানো যাবে তার বিস্তারিত পরিকল্পনাও তুলে ধরেন ইমরান। তিনি বলেন, ‘আমার জন্য নির্ধারিত ৫২৪ জন কর্মীর পরিবর্তে আমি মাত্র দুজন কর্মী নিয়ে কাজ করব। আমি তিন কামরার বাড়িতে বাস করব। নিরাপত্তা সংস্থাগুলো জানিয়েছে, আমার জীবন হুমকির মুখে, সে কারণে আমি ব্যবহারের জন্য দুটি গাড়ি রাখব। আমার মনে হয়েছিল বানিগালা থেকে আমার বাইরে যাওয়ার দরকার হবে না। কিন্তু আমাকে তাই করতে হয়েছে।’

ইমরান খান বলেন, ‘আমার সরকার সব বুলেটগ্রুপ গাড়ি নিলামে তুলবে। এসব গাড়ি কেনার জন্য আমি ব্যবসায়ীদের আমন্ত্রণ জানাব। এমনভাবে গাড়িগুলো নিলামে তোলা হবে যাতে করে এসব গাড়ি বিক্রির অর্থ রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা হয়। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর বাড়িটি আমি একটি গবেষণামূলক বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপ দিতে চাই।’ সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।



মন্তব্য