kalerkantho


আদিয়ালা থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে নওয়াজ ও মরিয়মকে

ভোটের আগে জামিন মিলছে না

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২০ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০




আদিয়ালা থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে নওয়াজ ও মরিয়মকে

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও তাঁর মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে আদিয়ালা কারাগার থেকে সিহালা রেস্টহাউসে স্থানান্তর করা হতে পারে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আদিয়ালা কারাগারের বেশ কয়েকজন বন্দি কারাগারে নওয়াজবিরোধী স্লোগান দেয়। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এমন পরিস্থিতিতে সিহালা রেস্টহাউসকে সাবজেল ঘোষণা করে সেখানে নওয়াজ ও তাঁর মেয়েকে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রাজধানী ইসলামাবাদের শহরতলিতে অবস্থিত সিহালা রেস্টহাউসকে এরই মধ্যে সাবজেলে পরিণত করা হয়েছে। পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং পিপিপি কো-চেয়ারপারসন আসিফ আলি জারদারির পাশাপাশি অতীতে অন্য সব আটককৃত রাজনৈতিক নেতাকেও সেখানে আটক রাখা হয়েছিল। সিহালা রেস্টহাউসটি সিহালা পুলিশ কলেজ এলাকায় অবস্থিত।

গত ১৩ জুলাই লন্ডন থেকে দেশে ফেরার পর লাহোরে নওয়াজ শরিফ ও তাঁর মেয়েকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। পরে তাঁদের রাওয়ালপিণ্ডির আদিয়ালা জেলে নিয়ে যাওয়া হয়। দুর্নীতির অভিযোগে নওয়াজ শরিফকে ১০ বছর ও মেয়ে মরিয়মকে সাত বছরের জেল সাজা দেওয়া হয়।

পাকিস্তানের সংবাদপত্র দ্য ডন জানিয়েছে, গতকাল সকালে কারাগারে নওয়াজ শরিফ যখন তাঁর কক্ষের সামনে হাঁটাহাঁটি করছিলেন তখন অন্য বন্দিরা বিভিন্ন স্লোগান দেওয়া শুরু করলে কর্তৃপক্ষ নওয়াজ শরিফের চলাফেরা সীমিত করে দিয়েছে। এ কারণে তিনি এখন নামাজের জন্য মসজিদেও যেতে পারবেন না। জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যদিও নওয়াজ শরিফ ও তাঁর মেয়ের জন্য নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে, তা সত্ত্বেও আদিয়ালা জেলে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে আটক ভয়ংকর বন্দি থাকায় জেল তাঁদের জন্য বিপজ্জনক হয়ে দেখা দিতে পারে। তা ছাড়া নেতার সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য বিপুলসংখ্যক রাজনৈতিক কর্মীর আসা-যাওয়া বেড়ে যাওয়ায় জেলের বাইরে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

ডনের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, এরই মধ্যে বোমা নিষ্ক্রিয় স্কোয়াড সিহালা পুলিশ কলেজ এলাকা পরিদর্শন করেছে এবং কোনো ধরনের বিস্ফোরক সেখানে রয়েছে কি না সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে চিরুনি অভিযান চালিয়েছে তারা। রেস্টহাউসটিকে সাবজেল ঘোষণার পর কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তাব্যবস্থা বাড়িয়েছে।

নওয়াজ শরিফ ও তাঁর মেয়েকে সিহালা রেস্টহাউসে নেওয়া হলে তাঁরা সেখানকার লাফওয়াত লজে থাকবেন। এরই মধ্যে সেটি পরিষ্কার করা হয়েছে এবং ফুল, পেইন্টিং ও বিভিন্ন ছবি দিয়ে তা সজ্জিত করা হয়েছে।

ভোটের আগে জামিন পাচ্ছেন না নওয়াজ!

অ্যাকাউন্টিবিলিটি কোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে ইসলামাবাদ হাইকোর্টে আপিল করেছিলেন নওয়াজ, মরিয়ম ও জামাতা মোহাম্মদ সফদর। পাশাপাশি জামিনও চেয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু সেই আবেদনের শুনানি চলতি মাসের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হাইকোর্টের দুই সদস্যের বেঞ্চ। যা থেকে এটা স্পষ্ট যে ২৫ জুলাই অর্থাৎ সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ পর্যন্ত জেলে থাকতেই হচ্ছে নওয়াজদের। নওয়াজকে সামনে রেখে শেষ মুহূর্তে প্রচারে ঝড় তোলার পরিকল্পনা করে রেখেছিল তাঁর দল পিএমএল-এন। আপাতত তা ভেস্তে গেছে।

তবে পাকিস্তানের প্রথম শ্রেণির একটি দৈনিক জানিয়েছে, নওয়াজ নিজে হাজির থাকতে না পারলেও দলের হয়ে প্রচারে নামছেন মরিয়মের ছেলে অর্থাৎ শরিফের নাতি জুনেইদ সফদর। ব্রিটেনের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন জুনেইদ। মঙ্গলবারই তিনি পাকিস্তানে এসেছেন। আগামী কয়েক দিন নওয়াজের দলের হয়ে বেশ কয়েকটি জনসভা করার কথা তাঁর। সূত্র : পিটিআই।



মন্তব্য