kalerkantho


রূপসী প্রেসিডেন্ট ফুটবল দলের প্রেরণা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



রূপসী প্রেসিডেন্ট ফুটবল দলের প্রেরণা

গ্যালারিতে কোলিন্দা গ্রাবার-কিটারোভিচ

কোলিন্দা গ্রাবার-কিটারোভিচের পরিচয় এখন আর শুধু ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্ট নয়। ৫০ বছর বয়সী এই নারী এখন ক্রোয়েশিয়া ফুটবল দলের অন্যতম বড় ভক্তও। আর এই ‘তকমা’ তিনি কোনো ক্ষমতার বলে পাননি। মাঠের বাইরে থেকে তো বটেই, দলকে উৎসাহ জোগাতে কখনো গ্যালারিতে বসে, আবার কখনো চলে যান খেলোয়াড়দের ড্রেসিংরুম পর্যন্তও।

গতকাল রবিবার রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া ফ্রান্সের বিপক্ষে মাঠে নামার আগের দিন কোলিন্দা গ্রাবার-কিটারোভিচ কতটা উত্তেজিত ছিলেন, তা তাঁর কথাতেই বোঝা যায়। শনিবার তিনি বলেন, ‘আমি জানি না, রবিবার পর্যন্ত আমি কিভাবে অপেক্ষা করব। আমার বিশ্বাস, আমরা বিজয়ী হব, আমরাই জয় ছিনিয়ে আনব।’ গ্রাবার-কিটারোভিচ সম্পর্কে নানা তথ্য নিয়ে গতকাল একটি প্রতিবেদন করেছে বার্তা সংস্থা এপি।

প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট

ক্রোয়েশিয়ার ইতিহাসে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট কোলিন্দা গ্রাবার-কিটারোভিচ। প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগের পেশাজীবনও বেশ বর্ণাঢ্য তাঁর। কাজ করেছেন ‘পাবলিক পলিসি’ বিভাগের জেনারেল সেক্রেটারি হিসেবে। যুক্তরাষ্ট্রে দায়িত্ব পালন করেছেন ক্রোয়েশিয়ার রাষ্ট্রদূত হিসেবে। এ ছাড়া প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগে কাজ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবেও।

রূপ

এ কথাও সত্য যে ‘অপরূপ সুন্দর’ হিসেবেও অনেকের মন জয় করে নিয়েছেন কোলিন্দা গ্রাবার-কিটারোভিচ। তাঁর পোশাক-আশাকও টানে অনেককে। বিশ্বের অন্যান্য নেতার মতো তাঁর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর অ্যাকাউন্ট ‘ভেরিফায়েড’ নয়। তবে সরকারি কাজে বিশ্বের যেখানেই ভ্রমণ করেন না কেন, কোলিন্দা প্রায় সময়ই ব্যক্তিগত অনেক ছবি শেয়ার করেন।

সুন্দর মন

দেশে এবং দেশের বাইরে ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্টের যে জনপ্রিয়তা, এর মূলে রয়েছে তাঁর দৃঢ় ব্যক্তিত্ব। একজন রাজনীতিক হিসেবেও তিনি মেধাবী। কোলিন্দা যখন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন, তখন ক্রোয়েশিয়ায় তীব্র অর্থনৈতিক মন্দা চলছিল। ক্ষমতায় এসে তিনি অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবেলায় যতগুলো সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার সবগুলোই সফল হয়েছে। ইরান চুক্তি নিয়ে যখন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইউরোপের টানাপড়েন চলছিল, তখন মুখ্য মধ্যস্থতাকারীর দায়িত্বও পালন করেন এই নারী।

ক্রীড়াপ্রেমী

খেলাধুলার প্রতি কোলিন্দার ভালোবাসা কখনো এতটুকু কমেনি; এমনকি প্রেসিডেন্টের মতো এত বড় পদে বসার পরও। বিশ্বকাপ ফুটবল এর অন্যতম উদাহরণ। ক্রোয়েশিয়ার খেলা মানেই কোলিন্দা গ্রাবার-কিটারোভিচের গায়ে জাতীয় দলের জার্সি। খেলার সময় তাঁকে দেখা গেছে গ্যালারিতে। আর খেলার পর রাকিতিচ-মডরিচদের সাহস ও উৎসাহ জোগাতে তাঁকে পাওয়া গেছে খেলোয়াড়দের ড্রেসিংরুমেও। সূত্র : এপি।

 



মন্তব্য