kalerkantho


পানামা পেপারস কেলেঙ্কারি

মোসাক ফনসেকা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



পানামা পেপারস-সংশ্লিষ্ট আইনি প্রতিষ্ঠান মোসাক ফনসেকা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। পানামা পেপারসে কর ফাঁকি দেওয়া কেলেঙ্কারি প্রকাশের পর বিশ্বের অন্তত দুই রাষ্ট্রনেতা পদত্যাগে বাধ্য হন। বুধবার প্রতিষ্ঠানটি জানায়, গণমাধ্যমের নেতিবাচক প্রচার এবং সরকারের অপ্রত্যাশিত ব্যবস্থার কারণে তারা প্রতিষ্ঠান বন্ধে বাধ্য হচ্ছে।

এক বিবৃতিতে মোসাক ফনসেকা জানায়, ‘বদনামের ভাগীদার হওয়া, গণমাধ্যমের নেতিবাচক প্রচার, অর্থিক পরিস্থিতি এবং পানামা কর্তৃপক্ষের অনিয়মিত ব্যবস্থা গ্রহণ প্রতিষ্ঠানের সংশোধন করা যায় না এমন ক্ষতি করে গেছে। এ কারণে চলতি মাসের শেষ দিকেই বন্ধ হয়ে যাবে প্রতিষ্ঠানটি।’

গত আগস্টেই এ প্রতিষ্ঠানের সহপ্রতিষ্ঠাতা জার্গেন মোসাক জানান, আস্থাহীনতার কারণে তাদের দেশের বাইরের বেশির ভাগ দপ্তরই বন্ধ হয়ে গেছে। ২০১৬ সালের ৩ এপ্রিল পানামা পেপারস কেলেঙ্কারি প্রথম ফাঁস হয়। মোসাক ফনসেকার ডিজিটাল আর্কাইভ থেকে প্রায় সোয়া কোটি ফাইলের তথ্য প্রকাশ করে দেওয়া হয়। বিশ্বের বহু ধনী ও প্রভাবশালী ব্যক্তির নিজ দেশে কর ফাঁকি দিতে অফশোর কম্পানি খোলার কথা বের হয়ে আসে।

এর জের ধরে পদত্যাগে বাধ্য হন আইসল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সিগমুনডুর ডেভিড গাননাওগসন। সরকারি পদ থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয় পাকিস্তানের সে সময়ের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে। এই তালিকায় নাম ছিল ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, ফুটবল খেলোয়াড় লিওনেল মেসি, আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট মাওরিসিও মাক্রিন নাম। বিশ্বের ৭৯টি দেশে এই ফাইলগুলোর ভিত্তিতে অন্তত দেড় শ তদন্ত শুরু হয়। সূত্র: এএফপি।  



মন্তব্য