kalerkantho


গোয়েন্দাপ্রধানদের আশঙ্কা

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনেও হস্তক্ষেপ করবে রাশিয়া

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



রাশিয়া আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনেও হস্তক্ষেপের চেষ্টা করবে বলে সতর্ক করেছেন মার্কিন গোয়েন্দাপ্রধানরা। উত্তর কোরিয়ার পরমাণু প্রকল্পকেও তাঁরা যুক্তরাষ্ট্রের জন্য সম্ভাব্য ‘বড় হুমকি’ হিসেবে দেখছেন। তাঁরা বলেছেন, ওয়াশিংটনের এই হুমকি মোকাবেলার সময় হয়ে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে গুরুতর হুমকি প্রসঙ্গে গত মঙ্গলবার সিনেট গোয়েন্দা কমিটির এক শুনানিতে ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের পরিচালক ড্যান কোটসসহ সিআইএ, এফবিআই, এনএসএ এবং আরো দুটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানরা একযোগে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিকে বিপর্যস্ত করার চেষ্টা করছে মস্কো। তারা ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে যেভাবে তত্পরতা চালিয়েছিল এখনো সেভাবেই কাজ করে চলেছে।

প্রসঙ্গত, গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিজয়ী করতে রাশিয়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে নানাভাবে ব্যবহার করে, ভুয়া খবরের জন্ম দেয়, এমনকি ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের প্রচারদলের ই-মেইলও হ্যাক করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার এক বছর পরও রাশিয়াসংক্রান্ত অভিযোগ তাঁর পিছু ছাড়েনি। তিনি বারবার অস্বীকার করলেও গোয়েন্দাপ্রধানদের বক্তব্যেও পাওয়া গেল তারই প্রমাণ। যাঁদের প্রত্যেককেই নিয়োগ দিয়েছেন ট্রাম্প।

ড্যান কোটস রাশিয়ার আচরণ প্রসঙ্গে বলেন, ‘তাদের আচরণে আমরা চোখে পড়ার মতো কোনো পরিবর্তন পাইনি। রাশিয়া তাদের অতীত কর্মকাণ্ডকে সফল বলে মনে করে—এতে কোনো সন্দেহ নেই। ২০১৮ সালের মধ্যবর্তী নির্বাচনকেও তারা লক্ষ্যবস্তু বলেই মনে করে।’

সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সির (সিআইএ) পরিচালক মাইক পম্পেও বলেন, ‘এখানে আগামী নির্বাচনে প্রভাব ফেলার ইচ্ছা ও তত্পরতা রাশিয়ার আছে।’ ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সির পরিচালক মাইকেল রজার্স বলেন, ‘এটা বন্ধ বা পরিবর্তন হবে না।’ সূত্র : এএফপি, বিবিসি।


মন্তব্য