kalerkantho


ভালোবাসার তাজমহল

কমানো হচ্ছে দর্শনার্থী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



কমানো হচ্ছে দর্শনার্থী

ভারতের আগ্রায় সপ্তদশ শতকে নির্মিত বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্তর্ভুক্ত তাজমহলের শুভ্রতা রক্ষায় এবং এর যেকোনো রকম ক্ষয়ক্ষতি ঠেকাতে দর্শনার্থী নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দৈনিক ৪০ হাজারের বেশি স্থানীয় মানুষকে তাজমহল পরিদর্শনের অনুমতি দেওয়া হবে না। তবে বিদেশিদের বেলায় এ নিয়ম প্রযোজ্য হবে না।

মোগল সম্রাট শাহজাহানের এ কালজয়ী কীর্তি তাজমহলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিবছর লাখ লাখ মানুষ সেখানে ছুটে যায়। সপ্তাহের অন্য দিনগুলোতে দৈনিক গড়ে ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার মানুষ তাজমহল পরিদর্শনে যায়। কিন্তু ছুটির দিনে এ সংখ্যা প্রায় ৭০ হাজারে দাঁড়ায়। সরকারি হিসাবে ২০১৬ সালে তাজমহল পরিদর্শনে আসা মানুষের সংখ্যা ছিল প্রায় ৬৫ লাখ। সদ্য বিদায় নেওয়া বছরের শেষ দিন তাজমহল দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়ে পাঁচজন আহত হওয়ার ঘটনাও ঘটে।

তাজমহল দেখভালের দায়িত্বে থাকা ভারতের আর্কিওলজিক্যাল সার্ভের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘এ সৌধের এবং একই সঙ্গে দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা আমাদের নিশ্চিত করতে হবে। ভিড় সামলানোটাই আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াচ্ছিল।’ 

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ গতকাল বুধবার জানায়, ভবিষ্যতে দৈনিক ৪০ হাজারের বেশি স্থানীয় মানুষকে তাজমহল পরিদর্শনের অনুমতি দেওয়া হবে না। স্থানীয়রা তাজমহল পরিদর্শন করতে চাইলে তাদের মাথাপিছু ৪০ রুপি দিতে হয় এং বিদেশিদের দিতে হয় এক হাজার রুপি করে। কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত ৪০ হাজার দর্শনার্থীর সীমাবদ্ধতা এড়াতে চাইলে স্থানীয়রা বেশি দামের ওই টিকিট কিনে তাজমহল ঘুরে দেখতে পারবে।

সম্রাট শাহজাহান স্ত্রী মমতাজ মহলের স্মরণে যমুনার তীরে গড়ে তোলেন তাজমহল। সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে মমতাজের মৃত্যু হয়। দূষণের কবলে পড়ে এমনিতেই ঐতিহাসিক ওই স্থাপনার সৌন্দর্য ম্রিয়মাণ হতে বসেছে। তার ওপর রয়েছে পর্যটকের চাপ। দূষণের কবল থেকে তাজমহলের শুভ্রতা রক্ষায় নানা পদক্ষেপের পাশাপাশি এবার দর্শনার্থী নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগও নিল কর্তৃপক্ষ। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য