kalerkantho


‘এই আমার জীবন’ বিষয়ে দুই হাজার ছয়শত ছবি আঁকলো শিশু শিল্পীরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ জানুয়ারি, ২০১৮ ২১:২৯



‘এই আমার জীবন’ বিষয়ে দুই হাজার ছয়শত ছবি আঁকলো শিশু শিল্পীরা

জাপানে অনুষ্ঠেয় ‘মিতস্যুবিসি এশীয় শিশুদের সচিত্র দিনলিপি (এনিক্কি ফেস্টা)’ শীর্ষক উৎসবে চিত্রকলা প্রতিযোগিতার জন্য বাংলাদেশ থেকে দুই হাজার ছয়শ’ ছবি জমা পড়েছে।

‘এই আমার জীবন’ বিষয়ে দেশের ৬৩টি জেলার শিশু শিল্পীরা ছবিগুলো এঁকেছে। প্রতিযোগিতার জন্য সারাদেশ থেকে মোট সাড়ে ৫শ’ শিশু শিল্পী অংশগ্রহণ করেছে।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি দেশব্যাপী শিশুদের মাঝে এই ছবি আঁকার প্রতিযোগিতার জন্য ছবি আহ্বান করলে এই ছবি জমা পড়ে। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির ৬৩টি জেলা শিল্পকলা একাডেমির শাখা অফিসের উদ্যোগে এই প্রতিযোগিতার জন্য ছবি সংগ্রহ করে। পরে ঢাকায় শিল্পকলা একাডেমিতে ছবিগুলো প্রেরণ করা হয়।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির চারুকলা বিভাগের পরিচালক শিল্পী মনিরুজ্জামান আজ বাসসকে এই তথ্য জানান। তিনি জানান, জাপানের মিতস্যুবিসির এই উৎসব ও প্রতিযোগিতাটি বিশ্বে খুবই মর্যাদাপূর্ণ একটি আয়োজন। বাংলাদেশের অংশগ্রহণকারী শিশুশল্পীদের প্রাপ্ত ছবি নিয়ে একাডেমি প্রদর্শনীও করবে। ঢাকায় আগামী মার্চ মাসের তৃতীয় সপ্তাহে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে বাংলাদেশে অংশগ্রহণকারী শিশুদের বাছাই চিত্রকর্মের ১০ দিনব্যাপী এই বিশেষ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিযোগিতার বাছাই ছবি জাপানে প্রেরণ করা হবে। জাপানের উৎসবে অংশগ্রহণের জন্য ছবি বাছাইসহ যাবতীয় প্রস্তুতির কাজ এগিয়ে চলছে।

শিল্পকলা একাডেমি থেকে জানানো হয়, এশিয়ার দেশসমূহের শিশুদের অঙ্কিত চিত্রকর্ম জাপানের দর্শকদের কাছে উপস্থাপন করার উদ্দেশ্যে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের এই উৎসব জাপানে অনুষ্ঠিত হবে। উৎসবে প্রত্যেক অংশগ্রহণকারী দেশের একজন করে শিশুশিল্পীকে গ্র্যান্ড প্রিক্স প্রদান করা হবে। গ্র্যান্ড প্রিক্স পুরস্কারপ্রাপ্ত শিশুশিল্পী জাপান সফরের সুযোগ পাবে। এ ছাড়া প্রত্যেক দেশের আরো ৭ জন শিশুশিল্পীকে ৭টি করে পুরস্কার প্রদান করা হবে।

শিশুশিল্পীরা ছবি এঁকে তার রোজকার ডায়েরি (সচিত্র দিনলিপি) লিপিবদ্ধ করে ছবির সঙ্গে জমা দিয়েছে । প্রতিযোগিতায় ৬ থেকে ১২ বছর বয়সী শিশুরা অংশ নেয়।



মন্তব্য