kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কবি শামসুর রাহমানের ৮৮তম জন্মদিন কাল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৬:৪৯



কবি শামসুর রাহমানের ৮৮তম জন্মদিন কাল

সমকালীন বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি শামসুর রাহমানের ৮৮তম জন্মদিন আগামীকাল রোববার।
বাঙালির প্রিয় এ কবির সৃষ্টি কর্মে শুধু স্বাধীনতাই নয়, সেই সাথে মৌলবাদ, ধর্মান্ধতা, প্রেম, দ্রোহ ও বিশ্বজনীনতাসহ সব কিছুই উঠে এসেছে, যা আজও আমাদের উজ্জীবিত করে।

আর এ কারণেই তিনি বাঙালীর সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ কবিদের একজন এবং আমাদের চলার পথের পাথেয়।
কবির জন্মবার্ষিকী স্মরণে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচীর আয়োজন করেছে। এর মধ্যে রয়েছে বনানী কবরস্থানে কবির সমাধিতে পুস্পমাল্য অর্পণ, আলোচনা সভা, গান ও কবিতা আবৃত্তির অনুষ্ঠান।
আগামীকাল সকালে কবির সমাধিতে বাংলা একাডেমি, জাতীয় কবিতা পরিষদ, শামসুর রাহমান স্মৃতি পরিষদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন পুস্পমাল্য অর্পণ করবে।
তার স্মরণে বিকেল ৪টায় বাংলা একাডেমি, জাতীয় কবিতা পরিষদ ও শামসুর রাহমান স্মৃতি পরিষদ যৌথভাবে একাডেমির রবীন্দ্র চত্বরে আলোচনা, নিবেদিত কবিতাপাঠ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। এতে সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমি ও শামসুর রাহমান স্মৃতি পরিষদের সভাপতি ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। আলোচনায় অংশ নেবেন সংস্কৃতিজন রামেন্দু মজুমদার, কবি রবিউল হুসাইন, কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা এবং অধ্যাপক রফিকউল্লাহ খান।
কবির জন্মদিনে চ্যানেল আই’তে রাজু আলীমের পরিচালনা ও রোকেয়া প্রাচীরের উপস্থাপনায় শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘শিল্প বিনোদন’ এর বিশেষ পর্ব প্রচারিত হবে বিকেল সাড়ে ৫টায়। এ অনুষ্ঠানে কবির সাহিত্য নিয়ে কথা বলছেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান এবং ভারতের কবি ও অনুবাদক শংকর সেন। প্রিয় কবির জন্মদিনে অভিব্যক্তি ব্যক্ত করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এবং কবি কামাল চৌধুরী। শামসুর রাহমান এর কবিতা থেকে আবৃত্তি করবেন আসাদুজ্জামান নূর, আল মনসুর ও ডালিয়া আহমেদ। চ্যানেল আই'র আর্কাইভ থেকে অনুষ্ঠানে কবির স্বকণ্ঠের আবৃত্তি থাকবে শমী কায়সার এর সাথে। স্টুডিও’তে কবি শামসুর রাহমান’কে নিয়ে স্মৃতিচারণ করবেন সম্লিলিত সাংস্কৃতিক জোট সভাপতি গোলাম কুদ্দুস এবং জাতীয় কবিতা পরিষদ এর সভাপতি কবি মোহাম্মদ সামাদ।  
স্বাধীনতার এ কবি দেশের ও দেশের মানুষের বিরুদ্ধে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠা যে কোন অপশক্তি বা কোন অনাচারের বিরুদ্ধে নিজেকে একাত্ম করে নিতেন এবং তার জবাব দিতেন কবিতার ভাষায়। আশা, বেদনা, ভালোবাসা, দ্রোহ কোনো কিছুই তাই বাদ যায়নি তাঁর কবিতা থেকে।
এ কবি প্রসঙ্গে জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতি কবি ড. মুহাম্মদ সামাদ বাসসকে জানান, বাঙালীর জীবনে শামসুর রাহমানের প্রয়োজন কতটুকু তা অনুধাবন করা যায় তাঁর কবিতা পাঠ করলেই। তাঁর কবিতায় স্বাধীনতা, মৌলবাদ, ধর্মান্ধতা, প্রেম, দ্রোহ, বিশ্বজনীনতা সবই উঠে এসেছে, যা আজো আমাদের উজ্জীবিত করে।
তিনি বলেন, শামসুর রাহমান নামটির সঙ্গে বাংলাদেশ ও এ দেশের কবিতাপ্রেমীদের নাড়ির যোগ রয়েছে। তিনি আমাদের স্বাধীনতার কবি। তিনি মৌলবাদ ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন বলেই শ্যামলীর নিজ বাড়িতে তাঁকে কৃষ্ণপক্ষের শক্তি দ্বারা আক্রান্ত হতে হয়েছিল।
কবি হাবিবুল¬াহ সিরাজী বলেন, শামসুর রাহমান বাঙালীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি। তিনি নগরে বাস করলেও শুধু নাগরিক কবি ছিলেন না, ছিলেন জনতার কবি।
তিনি বলেন, শামসুর রাহমানের প্রতি সেদিনই আমরা সঠিক শ্রদ্ধা জানাতে পারব, যেদিন বাংলার মাটি থেকে চিরতরে মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদ নির্মূল এবং সকল যুদ্ধাপরাধীর বিচার সম্পন্নের মাধ্যমে কুষ্ণপক্ষের শক্তির আষ্ফালন বন্ধ করতে পারব।


মন্তব্য